প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃবালাকোটে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হামলার পর পাকিস্তান সরকার জইশ-ই-মহম্মদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছে। শুধু তাই নয়, জাতিসংঘ নিরাপত্তা কাউন্সিলে মাসুদ আজহারকে যে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে ঘোষণার চেষ্টা চলছে তার বিরোধিতা নাও করতে পারে ইমরান খান সরকার। পাকিস্তান সরকার সূত্রের বরাত দিয়ে এমনটাই জানাচ্ছে ভারতীয় সংবাদসংস্থা পিটিআই।

 

 

 

 

পাকিস্তান সরকারের এক কর্মকর্তা ওই সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, জইশ নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর ব্যাপারে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে। তবে এক্ষেত্রে মাসুদ আজহারকে গৃহবন্দি নাকি জেলে ঢোকানো হবে তা ঠিক বলা যাচ্ছে না।

 

 

 

 

গত বুধবার জাতি নিরাপত্তা পরিষদে মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণার লক্ষ্যে নতুন প্রস্তাব পাঠিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স ও ব্রিটেন যৌথভাবে। এই ঘোষণা হয়ে গেল আজহারের অবাধ ঘোরাফেরা বন্ধ হবে, সব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করা হবে। সঙ্গে জারি হবে অনেক নিষেধাজ্ঞা। এটাই এতদিন চাইছিল ভারত।

 

 

 

 

 

তিন রাষ্ট্রের প্রস্তাবের পর আগামী ১০ দিনের মধ্যে ওই প্রস্তাব বিবেচনা করে রিপোর্ট দেবে পরিষদ। প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে পাক জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও এনিয়ে পাকিস্তানকে চাপ দিয়েছে।

 

 

 

 

 

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালেই ভারত মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণার দাবি করে। এনিয়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়েছিল চীন। ফলে গোটা বিষয়টি এখনও ঝুলে রয়েছে। এবার পুলওয়ামা হামলার পর ভারত ফের আর একবার মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশা করছে।