প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃভারত-পাকিস্তান সীমান্তে উত্তেজনা কমাতে তার ভূমিকার জুড়ি মেলা ভার। তিনিই শান্তির দূত। পাকিস্তানজুড়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রীকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেয়ার দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহলে। পাকিস্তান সংসদেও উঠেছে সেই প্রস্তাব। কিন্তু, যাকে নিয়ে এতো আলোচনা সেই ইমরান খানই বলছেন, ‘আমি নোবেল শান্তি পুরস্কারের যোগ্য নই।’

 

 

 

 

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাশ্মীরের জনগণের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিয়ে যে ব্যক্তি সীমান্ত বিতর্কের অবসান করতে পারবে এবং উপমহাদেশে শান্তি ও মানব উন্নয়নের পথ প্রশস্ত করবে তাকেই এই পুরস্কার দেওয়া উচিত।

 

 

 

 

 

পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর গত বুধবার ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে আটক করে পাকিস্তানী সেনা। পরে সেই অভিনন্দনকে ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দেন ইমরান খান।

 

 

 

 

 

এরপরই থেমে যায় ভারত-পাকিস্তান সীমন্তের উত্তেজনা। আর এই অবদানের জন্য পাকিস্তানজুড়ে ইমরান খানকে শন্তিতে নোবেল পুরুস্কারের দাবি উঠে বিভিন্ন মহলে।