প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  হোয়াটসঅ্যাপেই গ্রাহকের সঙ্গে লেনদেন এবং মেয়েদের ছবি আদানপ্রদান করে চুক্তি করা হতো। এরপর পছন্দ হলেই হোটেলে দেহব্যবসায় লিপ্ত হতো। ফের এমনই একটি হাই প্রোফাইল দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করল ভারতের পুলিশ৷

 

 

 

 

শুক্রবার ভারতের লখনউয়ের গোমতিনগরে বিকাশ খান্দ এলাকার একটি হোটেলে এই কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে ২ মহিলাসহ এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে দেশটির পুলিশ৷

 

 

 

 

 

জানা গেছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ ওই হোটেলে আচমকাই হানা দেয়৷ সেখান থেকে দুই মহিলাসহ বিক্রান্ত সিং নামের ওই ব্যাক্তি ধরা পড়ে৷ গত পাঁচ বছরে ১০-এরও বেশি দেহব্যবসার চক্রের পর্দা ফাঁস হয়েছে৷ ধৃত মহিলারা কলকাতা থেকে এই হোটেলে এসেছিল বলে জানা গিয়েছে৷

 

 

 

 

 

 

গোমতিনগরের এসএইচও আর এস সোনকার জানান, অভিযুক্ত ফোন করে দিল্লি, মুম্বাই থেকে মেয়েদের ডেকে আনত এবং হোটেলের রুম বুক করে গ্রাহকদের ডাকত৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুই মহিলা ওই হোটেলে এসে ৩০৩ এবং ৩০৫ নম্বর রুম বুক করে৷ খবর পেয়ে পুলিশ বিকেল ৫টা নাগাদ হোটেলে হানা দেয় এবং তিনজনকে গ্রেফতার করে৷

 

 

 

 

 

 

হোটেলের রুম থেকে বেশ কিছু আপত্তিকর সামগ্রী বাজেয়াপ্ত করা হয়৷ এই হোটেলের মালিক এলাহাবাদের এক ব্যবসায়ী বলে জানা গিয়েছে৷ মূলত ফোন, হোয়াটসঅ্যাপেই গ্রাহকের সঙ্গে লেনদেন এবং মেয়েদের ছবি আদানপ্রদান করে চুক্তি করত অভিযুক্ত৷