প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  পঞ্চগড়-ঢাকা রেলপথে যুক্ত হলো স্বল্প বিরতির পঞ্চগড় এক্সপ্রেস। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেলা ১:১২ মিনিটে আন্তনগর ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

 

 

 

এছাড়া আজ শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী কোনাবাড়ি ও চন্দ্রা ফ্লাইওভার, কালিয়াকৈর, দেওহাটা, মির্জাপুর ও ঘারিন্দা আন্ডারপাস এবং কাড্ডা-১, সাসেক সংযোগ সড়ক প্রকল্পের আওতায় জয়দেবপুর-চন্দ্রা-টাঙ্গাইল-এলেঙ্গা মহাসড়কে বিমাইল সেতুরও উদ্বোধন করেন।

 

 

 

 

দেশের দীর্ঘতম রেল রুটে দ্রুতগতির আধুনিক সুবিধাসংবলিত এই ট্রেন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী। আগেই উদ্বোধনসংক্রান্ত সব আয়োজন সম্পন্ন করে রেলপথ মন্ত্রণালয়। সজ্জিত করা হয় নতুন ট্রেনটি।

 

 

 

 

 

স্বাধীনতার আগে থেকে পরিচিত হয়ে ওঠা পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশনের নামটি পরিবর্তন করে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন নামকরণ করেছে রেল মন্ত্রণালয়।

 

 

 

 

 

ঢাকা-পঞ্চগড় রেলপথে প্রথমবারের মতো দ্রুতগতির পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেনটি ৫৯৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে ১০ ঘণ্টায়। ট্রেনটি প্রতিদিন দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গিয়ে রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছবে।

 

 

 

 

 

আবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে এটি পঞ্চগড়ে পৌঁছবে। যাত্রাপথে ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, পার্বতীপুর ও ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে ট্রেনটি থামবে।