প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: নীলাচল পর্বতে অবস্থিত কামাক্ষ্যা মন্দিরের হিন্দু দেবী কামাক্ষ্যা পূজিত হয়৷ এই মন্দিরটি হল একটি হিন্দু মন্দির৷ এই মন্দিরটি হিন্দুদের বিশেষত তন্ত্রসাধকদের কাছে একটি পবিত্র তীর্থ৷ এটি দেশের অন্যতম বিখ্যাত একটি হিন্দু মন্দির৷ এই মন্দিরটিকে ঘিরেই রয়েছে ৭টি অজানা গোপন রহস্য৷

 

 

 

 

 

১) এটি ভারতে অবস্থিত ৫২টি সতীপীঠের মধ্যে অন্যতম৷ ভারতের আসাম রাজ্যে অবস্থিত এই মন্দিরটি নীলাচল পর্বতে অবস্থিত৷ এটি সমুদ্রপীষ্ঠ থেকে ৮০০ফিট উপরে অবস্থিত৷ গুয়াহাটির পশ্চিমে অবস্থিত এই মন্দিরটি৷

 

 

 

 

২) কামাক্ষ্যা মন্দিরে রয়েছে একটি গর্ভগৃহ৷ এটি আসলে একটি গুহা৷ এই মন্দিরের ভিতরেই রয়েছে একটি যোনীর আকৃতিবিশিষ্ট একটি পাথর৷ ভূর্গভ থেকে বেরিয়ে আসা জল সবসময়ই এই বিশেষ পাথরটিকে ভিজিয়ে রাখে৷

 

 

 

 

 

৩) এই মন্দিরের পাশে আরও বেশ কিছু দেবতা পূজিত হন৷ তারা, ভৈরবী, ভূবনেশ্বরী এবং ঘন্টাকর্ণ দেবতা পূজা হয় এখানে৷ ৪) ১৬-এর দশকে এই মন্দিরটি ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল৷ এরপর ১৭-র দশকে কোচবিহারের রাজা নরনারায়ন এই মন্দিরটি আবার নতুন করে তৈরি করেছে৷

 

 

 

 

৫) মন্দিরের গায়ের অপরূপ কারুকার্য দেখলে চোখ জুড়িয়ে যাবে আপনারও৷ মন্দিরটির বাইরে গণেশ এবং অন্যান্য হিন্দু দেবদেবীর মূর্তি খোদাই করা রয়েছে৷

 

 

 

 

 

৬) এই মন্দিরটির ভিতরে রয়েছে তিনটি মন্ডপ৷ এগুলি চলন্ত, পঞ্চরত্ন এবং নাট্যমন্দির হিসেবে খ্যাত৷ সবথেকে পশ্চিমের মন্ডপটি বড়৷

 

 

 

 

 

৭) কথিত আছে, কামাক্ষ্যা দেবীর যোনীর অংশটি এই অঞ্চলে পড়েছিল৷ তারপর থেকেই এই মন্দিরটি স্থাপন করা হয়৷ সেই যোনীটিকেই পূজা করা হয় এখানে৷ তাই মন্দিরের ভিতর আজও পুরুষ প্রবেশ কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।কথিত আছে, কামাক্ষ্যা মন্দিরে পূজা করলে সমস্ত মনস্কামনা পূর্ণ হয়৷ শিবের স্ত্রী মোক্ষদাত্রী শক্তিই কামাক্ষ্যা নামে পরিচিত৷