প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:গত ২৩ মে লোকসভা ভোটের ফলাফল জানতে দেশবাসীর চোখ যখন টিভির পর্দায়, তখন গোটা গ্রামের চোখ এড়িয়ে এক নববধূ পালিয়ে গেল ওই গ্রামেরই মন্দিরের পুরোহিতের সঙ্গে।

 

 

 

 

পুরোহিতের সঙ্গে কনের পালিয়ে যাওয়ার এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের সিরঞ্জ শহর লাগোয়া আসাত গ্রামের। যে পুরোহিতের সঙ্গে ওই নববধূ ঘর ছেড়েছেন, তিনিই ওই তরুণীর বিয়ে দিয়েছিলেন গত ৭ মে। খবর-আনন্দবাজার

 

 

 

 

 

ওই পুরোহিতের নাম বিনোদ মহারাজ। তিনি আসাত গ্রামের মন্দিরের রোজকার পুরোহিত। ওই গ্রামের সবাই শুভ কোনও অনুষ্ঠানের জন্য বিনোদেরই দ্বারস্থ হতেন। গত ৭ মে ওই তরুণীর বিয়ে দেন তিনি। বিয়ে করে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার দিন কয়েক পর ওই নববধূ এসেছিলেন বাপের বাড়িতে।

 

 

 

 

গত ২৩ মে ওই গ্রামের আরও এক জনের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। সেই বিয়ে দেয়ার কথা ছিল বিনোদেরই। কিন্তু বিয়ের সময় এগিয়ে আসছে। কিন্তু পুরোহিতের পাত্তা নেই। সারা গ্রাম হন্যে হয়ে খুঁজেও পাওয়া যায়নি বিনোদকে। এরই পাশাপাশি দু’সপ্তাহ আগে বিয়ে হওয়া ওই নববধূকেও দেখা যাচ্ছিল না। তখনই শুরু হয় খোঁজ। তারপরই পুরোহিতের সঙ্গে সদ্য বিয়ে হওয়া ওই তরুণীর পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি সামনে আসে।

 

 

 

 

 

 

এর পরই ওই তরুণীর বাড়ির লোকজন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। জানা গিয়েছে, ওই তরুণীর সঙ্গে বিনোদের গত দু’বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

 

 

 

 

 

যদিও ওই পুরোহিত বিবাহিত এবং তাঁর দু’টি সন্তানও রয়েছে। ঘটনার পর থেকেই পুরোহিতের বাড়ি তালা বন্ধ। ওই নব বিবাহিত তরুণী বিয়ের গয়না-সহ ৩০ হাজার টাকা নগদ নিয়ে পালিয়েছেন বলেও অভিযোগ দায়ের হয়েছে।