প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, চলতি বছরই দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে পরিবর্তন আসবে। ঐক্যফ্রন্টের পাশাপাশি গণফোরামকেও শক্তিশালী করা হবে। যদিও শক্তিশালী আন্দোলনের ওপরই অনেক কিছু নির্ভর করছে। দ্রুত গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার এখন ঐক্যফ্রন্টের প্রধান লক্ষ্য।

 

 

 

 

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর বেইলি রোডের নিজ বাসায় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এ আশা প্রকাশ করেন তিনি।ড. কামাল বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, বর্তমান সময়ের মতো একটা স্বৈরতান্ত্রিক অবস্থা থেকে মুক্ত হতে হলে জনগণের ঐক্য প্রয়োজন এবং সচেতন রাজনৈতিক দলগুলো যারা আছে, তাদের ঐক্য অপরিহার্য।

 

 

 

 

ঐক্যফ্রন্ট ভাঙছে কি না এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মোটেই না। আমরা আগামী ১২ তারিখে বসছি আবার। আমাদের কথা হলো, আমরা বসে পুরো কৌশলটা ঠিক করে মাঠে নেমে যাই, ঐক্য আরো সুসংহত করি। উনি (কাদের সিদ্দিকী) আমাদের ঐক্যের অন্যতম সাথী। তিনি প্রশ্নগুলো করতে পারেন। আমরা খোলামন নিয়ে ঘণ্টা-দুয়েক তার সাথে আলাপ করেছি। আমরা ১২ তারিখ বসে ইতিবাচক সিদ্ধান্তে আসতে পারব।

 

 

 

 

 

কামাল বলেন, আমি মনে করি, এই বছরের মধ্যে জনগণের মধ্যে ঐক্যকে আরো সুসংহত করে দেশে আরো প্রকৃত অর্থে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করার কাজে আমাদের সবাইকে কাজে নেমে দাবি আদায় করতে হবে।অচিরেই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলন জোরদার করা হবে বলেও জানান ড. কামাল।

 

 

 

 

 

গণফোরামের নেতা আবু সাইয়িদ, মহসিন রশিদ, সিদ্দিকুর রহমান, আহমেদ আমীন আফসারী, লতিফুল বারী হামিম এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।