প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  ভারতের পাটনা বিমানবন্দর উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ফোনে বিমানবন্দর উড়িয়ে দেওয়া হুমকি পেয়েছে পাটনা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

 

 

 

 

 

জানা গেছে, রবিবার রাতে ফোনটি আসে কলকাতা থেকে। মাঝরাতের ওই ফোন পাওয়ার পরই শুরু হয় তল্লাশি। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও বোমা বা অন্য কোনও বিস্ফোরক খুঁজে পাওয়া যায়নি।

 

 

 

 

 

রবিবার রাতে পাটনার জয়প্রকাশ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি ফোন আসে। ফোনে বলা হয়, পাটনা বিমানবন্দরে মজুত করা হয়েছে প্রচুর বিস্ফোরক। যেকোনো সময় উড়িয়ে দেওয়া হতে পারে গোটা বিমানবন্দরটি।

 

 

 

 

 

ফোনটি আসার পর উত্তেজনা ছড়ায় বিমানবন্দরে। শুরু হয়ে যায় তল্লাশি। বোমা ডিসপোজাল স্কোয়াড ও স্নিফার ডগ দিয়ে গোটা বিমানবন্দরে তল্লাশি চালানো হয়। কিন্তু তল্লাশির পর কোনও বিস্ফোরক খুঁজে পাওয়া যায়নি। শেষ পর্যন্ত ওই হুমকি ফোনটিকে ভুয়া বলে জানায় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

 

 

 

 

 

এদিকে, ফোনটি পাওয়ার পরই নিরাপত্তার স্বার্থে জরুরি বৈঠক করে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। বৈঠকে উপস্থিত ছিল পাটনা পুলিশও। বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা যথাযথ রয়েছে কি-না, বা প্রয়োজন পড়লে কীভাবে নিরাপত্তা দেওয়া হবে, তা নিয়েও দুপক্ষের মধ্যে কথা হয়।

 

 

 

 

 

কিন্তু শেষ পর্যন্ত এসব কোনও কাজেই আসেনি। কারণ তল্লাশির পর বিমানবন্দরের কোথাও কোনও বিস্ফোরক পাওয়া যায়নি। তবে হুমকির জেরে বিমানবন্দরের কাজ অনেকটা পিছিয়ে যায়। বিমান ওঠানামার ক্ষেত্রেও সমস্যা তৈরি হয়।

 

 

 

 

 

জানা গেছে, পাটনা বিমানবন্দরে ফোনটি গিয়েছিল কলকাতা থেকে। কোনও এক ল্যান্ডলাইন থেকে ফোনটি করা হয়েছিল। যে ফোনটি করেছিল, সে প্রথমে নিজেকে সিআরপিএফ জওয়ান হিসেবে পরিচয় দেয়। সে বলে, হেডকোয়ার্টার থেকে ফোন করছে সে। নিজেকে আধাসামরিক বাহিনীর প্রধান বলে দাবি করে ওই ব্যক্তি।

 

 

 

 

 

তবে পরে জানা যায়, সেটি একেবারেই ভুল তথ্য। পাটনা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ফোনটি ট্রেস করা হচ্ছে, খুব শীঘ্রই অপরাধী ধরা পড়বে। তবে ফোনের নেপথ্যে জঙ্গি যোগ উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তাই এখনও কড়া নজরদারি জারি রয়েছে পাটনা বিমানবন্দরে।