প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  ব্রিস্টলে বাংলাদেশ দলের হোটেলের কাছে যেতেই ৯০০ বছরের পুরো সেন্ট মেরি গির্জা তারস্বরে ঘণ্টা বাজিয়েই চলেছে! অনিন্দ্যসুন্দর উপাসনালয় নিয়ম করেই এটি বাজায়। তবে শ্রীলঙ্কা ম্যাচের আগে বাংলাদেশ দলের অন্দরমহলের ক্রমাগত বাজতে থাকা সতর্কঘণ্টার সঙ্গে কোথায় যেন মিল এর। আজ মঙ্গলবার বৃষ্টিতে ম্যাচটি পণ্ড হলেই সব গেল! সেমিতে ওঠার পথে শ্রীলঙ্কাকে যে ‘এনার্জি ড্রিংক’ মনে করছে বাংলাদেশ।

 

 

 

 

 

সেমির রোডম্যাপে বাংলাদেশ প্রথম তিন ম্যাচের একটিতে জয় গুনে রেখেছিল। নিউজিল্যান্ডের পরিবর্তে দক্ষিণ আফ্রিকাকে দিয়ে সেটি পাওয়াও হয়ে গেছে। স্বপ্নযাত্রার দ্বিতীয় ল্যাপে শ্রীলঙ্কা ‘শিওর শট’। কিন্তু ব্রিস্টলের আবহাওয়া যে বিগড়ে বসেছে। সকালের রোদে ঠিকঠাক অনুশীলন করে গেছে বাংলাদেশ। কিন্তু দুপুরের পর শ্রীলঙ্কা মাঠে নামতেই বৃষ্টি। আর অনুশীলনই করা হয়নি দলটির। স্থানীয় আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস মতে আজ বৃষ্টির সম্ভাবনাই বেশি।

 

 

 

 

 

তাই আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগের এক কর্মকর্তা বাংলাদেশ দলকে জানিয়ে গেছেন, ‘বৃষ্টি দেখলে মাঠে এসো না। যদি এসে পড়ো তাহলে আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করার আগে কিন্তু মাঠ ছাড়তে পারবে না। বাংলাদেশ দল এ ব্যাপারে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি। যদি চায় তবে বৃষ্টি দেখে হোটেলেই থাকতে পারে। খেলার পরিবেশ সৃষ্টি হলে আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হবে, তখন এলেই হবে।

 

 

 

 

 

মাশরাফি বিন মর্তুজা থেকে শুরু করে দলের সবার ভয় দেখছি আবহাওয়ার পূর্বাভাসকে ঘিরেই, ‘ম্যাচ হওয়াটা আমাদের জন্য দারুণ গুরুত্বপূর্ণ। ম্যাচ না হওয়াটা আমাদের জন্য অঙ্কটা অনেক কঠিন করে দেবে।’ দলের ভেতর এ আলোচনা আরো বেশি উদ্বেগজনক। ব্রিস্টলের ম্যাচ ভেসে গেলে পরের পাঁচ ম্যাচ থেকে সেমিতে ওঠার পর্যাপ্ত রসদ মেলার সম্ভাবনা দেখছেন না অনেকেই।

 

 

 

 

 

অবশ্য বাংলাদেশের দুশ্চিন্তা তো একটি না। ইংল্যান্ড ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময় কুঁচকিতে চোট পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। সেই ব্যথা বেড়ে যাওয়ায় গতকালের অনুশীলনে ট্র্যাক স্যুট পরে ঘুরেছেন শুধু তিনি। বিকেলে স্ক্যানও করানো হয়েছে। ফল হাতে পেলেই শুধু জানা যাবে, বিশ্বকাপের এ পর্যায়ে ‘মি. বাংলাদেশ’ শ্রীলঙ্কা ম্যাচ খেলবেন কি খেলবেন না?

 

 

 

 

 

সাকিব যদি খেলেনও, তাতেও দুশ্চিন্তামুক্ত হতে পারছে না বাংলাদেশ। পরিস্থিতি যা, তাতে আজকের ম্যাচে একটি পরিবর্তন অবধারিত। রুবেল হোসেন এবারের আসরে প্রথম ম্যাচ পাচ্ছেন। ব্রিস্টলের কন্ডিশন তাঁর পক্ষে। তাই নেটে রুবেলের মহড়া গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করেছেন কোচ স্টিভ রোডস।

 

 

 

 

তবে কোনো বোলার নয়, প্র্যাকটিসের হালচাল বলছে মোসাদ্দেক হোসেনের জায়গা নেবেন রুবেল। তাতে ব্যাটিং অর্ডার একটু ছাঁটাই তো হবেই। এর বাইরে মোহাম্মদ মিঠুনের জায়গায় সাব্বির রহমানকে খেলানোর চিন্তাভাবনা আছে। তবে সেই চিন্তার চূড়ান্ত বাস্তবায়ন অন্তত এক ম্যাচ পিছিয়ে যেতে পারে, মানে আরেকটি সুযোগ পাবেন হয়তো মিঠুন।

 

 

 

 

 

 

একাদশ গেল; কিন্তু আগের তিন ম্যাচের ময়নাতদন্ত তো থেমে নেই। অভাবিতভাবে প্রশ্নবিদ্ধ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার বোলিং সামর্থ্য! আশ্চর্য, যে লোকটি গত দুই বছরে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সফলতম বোলারদের একজন, তাঁকে তিন ম্যাচেই আতশকাচের নিচে ফেলে দিয়েছে জনতা!

 

 

 

 

 

 

এক ব্রিটিশ সাংবাদিকই গতকাল প্রশ্নটি তুলেছেন সংবাদ সম্মেলনে, কেন অধিনায়ক নিজের বোলিং কোটা পূরণ করছেন না? মাশরাফির জবাবে অবশ্য তাঁকে সন্তুষ্টই মনে হয়েছে, ‘প্রথম দুই ম্যাচে স্পিনারদের বেশি কার্যকর মনে হয়েছিল, তাই পেসারদের বেশি ব্যবহার করিনি। গত ম্যাচে পেস সহায়ক কন্ডিশনে আমরা পেসাররা বেশি বোলিং করেছি। যা করা হচ্ছে, তা দলের প্রয়োজনেই। সামনের ম্যাচগুলোতেও একই চিন্তা নিয়ে খেলব।’

 

 

 

 

 

 

তবে আজকের ম্যাচে পেস শক্তি বাড়ানোর চিন্তার পেছনে প্রতিপক্ষও বিবেচনায় এনেছে বাংলাদেশ। উপমহাদেশীয় দল শ্রীলঙ্কাও স্পিন ভালো খেলে। বরং গতকাল নেটে মুশফিকুর রহিমকে করা বোলিং রুবেল হোসেন যদি লঙ্কানদের বিপক্ষেও করতে পারেন, তাহলে সিংহ শিকার হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

 

 

 

 

 

 

লঙ্কান সিংহদের বিপক্ষে সম্প্রতি লড়াইয়ে অবশ্য একই সমতায় বাংলাদেশ, ২-২। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপে আসার পথে এবং বিশ্বকাপের মাঠের নৈপুণ্যে এগিয়ে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা জিতেছে মাত্র একটিই, আফগানিস্তানের বিপক্ষে লো স্কোরিং ম্যাচ। নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরেছে যাচ্ছেতাইভাবে, অল আউট হয়েছে মাত্র ১৩৬ রানে। কিন্তু ক্রিকেটে ভাগ্য লাগে। শ্রীলঙ্কা যেমন হতোদ্যম পারফরম্যান্স করেও বৃষ্টিতে পণ্ড হওয়া পাকিস্তান ম্যাচ থেকে পয়েন্ট নিয়ে এখন ৫ নম্বরে আছে!

 

 

 

 

 

ভাগ্য লাগে। তামিম ইকবালের বিশ্বকাপ ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় মাশরাফিও যেমন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘ভাগ্য লাগবে ওর। হাজার চেষ্টা করেও লাভ নেই। ভাগ্যে না থাকলে ওর রান হবে না।’ নিজের দেওয়া সাক্ষাৎকারেও তামিম পরোক্ষে ভাগ্যের কথাই তো বলেছিলেন, ‘দুটি মাত্র ভুলেই আমি দুইবার আউট হয়েছি।’

 

 

 

 

 

আজকের বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ তো আরো বেশি ভাগ্যনির্ভর। আসলে আবহাওয়ানির্ভর। তবে আবহাওয়া আর ভাগ্য তো একই সুতায় গাঁথা। এর কোনোটির ওপরই মনুষ্য সমাজের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

 

 

 

 

 

 

আজ ব্রিস্টলের আবহাওয়া কেমন থাকবে, সেটির নিয়ন্ত্রণও নেই কারোর হাতে। এমনকি দুর্দান্ত দক্ষ এখানকার আবহাওয়া অফিসই তো নিয়ম করে হিমশিম খাচ্ছে পূর্বাভাস দিতে গিয়ে। মিনিটে মিনিটে আবহাওয়ার ‘মতিভ্রম’ হচ্ছে, সেটির আপডেটও মিলছে আবহাওয়া অফিস থেকে।

 

 

 

 

 

ইংলিশ সামারের রংবদলের এ ধারা যদি অব্যাহত থাকে, তাহলে আজ খেলা হয়েও যেতে পারে। সিনিয়র এক ক্রিকেটার বলছিলেন, ‘খেলা হলে আমরা জিতবই—এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। কিন্তু খেলা না হলে খুব আফসোস থেকে যাবে। ওটা চাই না।’ ম্যাচ পণ্ড হওয়া অবশ্য কারোরই কাম্য নয়।সেন্ট মেরি চার্চের ঘণ্টাধ্বনিতে কি আজ এ ধরনের প্রার্থনার সুরে বাজবে? শুনেছি, সব উপসনালয়ে প্রার্থনা হয় সবার জন্যই।