প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:সম্প্রতি ধর্মের প্রতি খুব ঘনিষ্ঠভাবে ঝুঁকেছেন ঢালিউডের সুপারহিট অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। ইসলাম ধর্মের গুরুত্বপূর্ণ ফরজ হজও পালন করে এসেছেন তিনি।

 

 

একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে তার এ ধর্মকর্মকে বা একজন ধার্মিক হিসেবে চলচ্চিত্রকে তিনি খুব স্বাভাবিক দৃষ্টিতে দেখলেও অনেকে সেটা মনে করে না। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে অনেকে আমাকে দেখে অবাক হয়ে যান। তিনি বলেন, চলচ্চিত্রের মানুষের প্রতি অনেকের একটা খারাপ ধারণা জন্ম নিয়েছে। তাদের ধারণাই নেই, একজ চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বও নামাজ পড়তে পারেন।

 

 

তিনি আরো বলেন, বিশেষ করে ধর্মীয় অনেক ব্যক্তিত্ব আমাদের অবজ্ঞা করে থাকেন। আমরা ধর্ম নিয়ে কথা বললে সেটা তারা মানতেই পারেন না। আমরাও যে ইসলাম সম্পর্কে কিছু জানি, জড়াশোনা করি সে ব্যাপারে তারা খটকায় থাকেন। অবশ্য এখন অনেকেরই সেই খটকাটা কমে গেছে।

 

 

সমাজদরদি এ অভিনেতা বলেন, চলচ্চিত্রে থেকেও আমরা ধর্ম পালন করছি এটাতো আরো ইতিবাচক দিক। আমরা যারা চলচ্চিত্রে থেকেও ধর্ম পালন করি তারাও যদি সরে আসি তাহলে তো চলচ্চিত্র জগতটা পুরোটাই শয়তানের আখড়া হয়ে উঠবে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি ‘হাজি শরিয়তুল্লাহ’ নামে একটি ছবিও করেছি। একজন আল্লাহওয়ালা কিভাবে চলেন, কি করেন সেগুলো জানতাম বলেই ছবিটি করতে পেরেছি।

 

 

ইলিয়াস কাঞ্চন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের পাশাপাশি সমাজসেবার জন্য ভূষিত হয়েছেন একুশে পদকের সম্মানেও। ইলিয়াস কাঞ্চন এ যাবত মোট ২৬টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত প্রথম ছবিটি ১৯৭৭ সালে মুক্তি পওয়া ‘বসুন্ধরা’। সর্বশেষ ছবি ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘বিজলী’। তার সবচেয়ে জনপ্রিয় ছবি ১৯৮৯ সালে মুক্তি পওয়া ‘বেদের মেয়ে জোসনা’।