প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:বেল আমাদের অতি পরিচিত একটি ফল। কিউ সাইন্সের মতে বেলের আদি নিবাস আসাম, বাংলাদেশ ও ভারত। তবে বর্তমানে অনেক দেশেই বেল পাওয়া যায়। পালি সাহিত্যের বিখ্যাত গ্রন্থ ‘জাতক’-এ বেলের কথা উল্লেখ আছে।আমরা তাই বলতে পারি হাজার হাজার বছর ধরে এ অঞ্চলে বেল রয়েছে। হিন্দু ধর্মে বেল একটি পবিত্র গাছ। এই জন্য মন্দির এলাকায় বেল গাছ লাগানো হয়। থাইল্যান্ডের ধর্মীয় স্থানগুলোতে বেল গাছ লাগানো হয় এবং সেখানে ফল দিয়ে ভিক্ষুদের জন্য মজাদার শরবত তৈরি হয়।

 

বেল মাঝারি আকারের পাতাঝরা, ধীরবৃদ্ধিসম্পূর্ণ বৃক্ষ জাতীয় উদ্ভিদ। ১২ থেকে ১৫ মিটার উঁচু হয়। পুরো গাছে বিক্ষিপ্তভাবে ১.০ থেকে ২.৫ সেন্টিমিটার লম্বা, শক্ত, তীক্ষ্ণ ধারালো কাঁটা হয়। কাণ্ড গোলাকার, বাকল পুরু, নরম, রং ধূসর বা হালকা ধূসর, কচি কাণ্ডের বাকল মসৃণ, বয়স্ক গাছের বাকল ফাটা ফাটা।

 

শীতের পরে পাতা ঝরে যায় এবং বসন্তে নতুন পাতা গজায়। কচি পাতার রং তামাটে, পারিপক্ব পাতার রং গাঢ় সবুজ। একটি পত্রিকায় সাধারণত তিনটি পাতা থাকে। নিচের দিকের পাতা দুটি প্রায় বোঁটাহীন, উপরের একক পাতায় বোঁটা রয়েছে। পাতা বর্শাফলাকৃতি, কিনারা সূক্ষ্ম খাঁজকাটা ও শিরাগুলো স্পষ্ট। নতুন পাতা গজানোর পরপরই গাছে ফুল আসা শুরু হয়। পুষ্পমঞ্জরি অনিয়ত ও শাখায়িত। কলি ছোট, অনেকটা গোল ও রং সবুজ। কলি থেকে সবুজাভ সাদা বা হলুদ ফুল ফোটে।

ফুল ছোট, উভলিঙ্গ, মিষ্টি সুগন্ধযুক্ত, তবে ক্ষণস্থায়ী। ফুলের পাপড়ি ৪ থেকে ৫টি, ডিম্বাকার-আয়তকার ও চারদিকে বিস্তৃত। পুংকেশর অনেক, গর্ভাশয় বিস্তৃত ও মধ্যভাগ খোলা। ফল বড়, প্রায় গোলাকার, মসৃণ, বাহিরের আবরণ খুব শক্ত। কাঁচা ফলের রং হালকা সবুজ, পাকা ফল হালকা হলুদ। ফলের ভেতরে মিষ্টি ও সুগন্ধযুক্ত শাঁস থাকে এবং শাঁসের মধ্যে ৮ থেকে ১৫টি প্রকোষ্ঠ থাকে। প্রতি প্রকোষ্ঠের আঠালো অংশের মধ্যে সাদা বীজ থাকে। এপ্রিল-মে মাসের দিকে ফুল হয়, অথচ তখনও গাছে ফল থাকে। তাই বেলের অপর নাম ‘সদাফল’। বীজ থেকেই বংশবিস্তার।

বেল কাঠের রং হলুদ বা ধূসর সাদা। তাজা কাঠ খুব সুগন্ধি। কাঠ শক্ত কিন্তু টেকসই নয়। গাছের পাতা ও কাঁচা ফল থেকে এক প্রকার উদ্বায়ী তেল পাওয়া যায়। বেল গাছের পুরো অংশই ভেষজগুণে ভরা। তবে অন্যান্য ফল পাকলে গুণাগুণ বৃদ্ধি পায় কিন্তু বেল পাকলে গুণাগুণ কমে। বরং কাঁচা বেলই গুণকারী।

পাকা বেল দীর্ঘদিন খেলে অন্ত্রে সূক্ষ্ম ছিদ্র পথ তৈরি হতে পারে। কাঁচা বেল খেলে সেই ছিদ্রগুলো বন্ধ হয়। বেলের বৈজ্ঞানিক নাম Aegle marmelos. পরিবার Rutaceae.