প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:সাংবাদিকরা বয়কট করার পর এবার প্রেস ক্লাব অফ ইন্ডিয়ার সদস্যরাও সমালোচনা করলেন কঙ্গনা রানাওয়াতের। জানালেন বয়কটের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছেন তাঁরা।

একটি বিবৃতিতে ক্লাবের সদস্যরা বলেন, ‘একজন বলিউড অভিনেত্রীর সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এহেন অসভ্য় ও অকথ্য মন্তব্যে প্রেস ক্লাব অফ ইন্ডিয়ার সদস্য হিসেবে আমরা ক্ষুব্ধ ও বিস্মিত। আমরা কঠোরভাবে বিরোধিতা করছি। সাংবাদিকদের উদ্দেশে এমন আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। মুম্বাইয়ের এন্টারটেনমেন্ট জার্নালিস্টস গিল্ডের বয়কটের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছি।”

শুধু প্রেস ক্লাব অফ ইন্ডিয়া নয়, শুক্রবার মুম্বাইয়ের প্রেস ক্লাবও কঙ্গনার সমালোচনা করেছে। ক্লাবের তরফে বলা হয়, টুইটারে সাংবাদিকদের অপমান করেছেন কঙ্গনার বোন রঙ্গোলি চান্দেল। যদিও ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’র প্রযোজক একতা কাপুর ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন। তবে কঙ্গনা নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থেকেছেন। প্রেস ক্লাবের মতে, ‘কঙ্গনা ও রঙ্গোলি প্রথমবার সাংবাদিকদের অপমান করেননি। এটা তাঁরা প্রায় অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন।”

মুম্বাই প্রেস ক্লাবেরও দাবি, কঙ্গনাকে ক্ষমা চাইতে হবে জাস্টিন রাও নামে ওই সাংবাদিকের কাছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বলিউডের বিবেকসম্পন্ন লোকেদের কাছে অনুরোধ অসভ্য ও অভদ্র মানুষদের নিয়ন্ত্রণ করা হোক।’

৭ জুলাই ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’র একটি ট্রেলার লঞ্চ অনুষ্ঠানে জাস্টিন রাও নামে একজন সাংবাদিকের সঙ্গে বিতর্কে জড়ান কঙ্গনা। তাঁর অভিযোগ ছিল জাস্টিন ‘মণিকর্ণিকা’ ছবি সম্পর্কে অপপ্রচার করেছিলেন। তিনি এও জানান, ওই সাংবাদিক তাঁকে ব্যক্তিগতভাবে মেসেজ করেছিলেন। তিন ঘন্টা তাঁর সঙ্গে কাটিয়েছিলেন। জাস্টিন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, মাত্র কিছু সময়ের জন্য অভিনেত্রীর সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন তিনি। কোনও মেসেজই কঙ্গনাকে করেননি বলেও দাবি সাংবাদিকের।

এরপরই সাংবাদিকরা সিদ্ধান্ত নেন ক্ষমাপ্রার্থনা না করলে বয়কট করা হবে কঙ্গনাকে। বৃহস্পতিবার একটি ভিডিও বার্তায় কঙ্গনা স্পষ্ট জানিয়ে দেন ক্ষমা চাইবেন না তিনি।