প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: সাড়ে চারশোর বেশি মানুষ মারা যাওয়ার পর ‘জাতীয় ডেঙ্গু অ্যালার্ট’ ঘোষণা করেছে ফিলিপাইনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।সিএনএন জানিয়েছে, গত জানুয়ারি থেকে দেশটিতে এত সংখ্যক মানুষ মারা গেছেন।

 

 

 

 

চলতি বছরে ডেঙ্গুর কারণে রীতিমতো দিশেহারা ফিলিপাইন। প্রথম ছয় মাসে এক লাখের মতো মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ গত বছর এই সময়ে সংখ্যাটা ছিল মাত্র ১৫ হাজার।

 

 

 

 

 

মশা-বাহিত এই ভাইরাল ইনফেকশন হলে সাধারণত তীব্র জ্বর ও সেই সঙ্গে সারা শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভূত হয়। শরীরে বিশেষ করে হাড়, কোমর, পিঠসহ অস্থিসন্ধি এবং মাংসপেশিতে তীব্র ব্যথা হয়। এ ছাড়া মাথাব্যথা ও চোখের পেছনে ব্যথা হয়। অনেক সময় ব্যথা এত তীব্র হয়, মনে হয় হাড় ভেঙে যাচ্ছে। তাই এ জ্বরের আরেক নাম ‘ব্রেক বোন ফিভার’।

 

 

 

 

 

 

জ্বর হওয়ার চার বা পাঁচ দিনের সময় শরীর জুড়ে লালচে দানা দেখা যায়, যাকে বলা হয় স্কিন র‌্যাশ, অনেকটা অ্যালার্জি বা ঘামাচির মতো।

 

 

 

 

 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে প্রতি বছর ৫ লাখ মানুষ ডেঙ্গুতে মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে গড়ে সাড়ে বারো হাজার মানুষ মারা যায়।