প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: ক্লোন বা অনিবন্ধিত আইএমইআই নম্বরের মোবাইল ফোন চিহ্নিত করতে আগামী ১ আগস্ট থেকে ডেটাবেইজ ব্যবস্থা সচল হচ্ছে। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন এক নির্দেশনায় এ তথ্য জানায়।

 

 

 

 

 

এই ডেটাবেইজে যে ফোনগুলো পাওয়া যাবে না সেগুলো আপাতত ক্লোন বা অনিবন্ধিত আইএমইআই নম্বরের ফোন হিসেবে চিহ্নিত হবে। কর্তৃপক্ষ পরবর্তি সময়ে ন্যাশনাল ইক্যুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টারের মাধ্যমে সেই ফোনগুলোর সংযোগ কেটে দিতে পারবে।

 

 

 

 

 

বিটিআরসি জানায়, মোবাইল ফোন কেনার আগে ক্রেতাদের অবশ্যই তা আসল কিনা তা জেনে নিতে হবে। এটা জানা পদ্ধতিটা হলো- মেসেজ অপশনে গিয়ে KYD লিখে স্পেস দিয়ে ফোনের ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বরটি লিখতে হবে।

 

 

 

 

 

 

তারপর তা পাঠিয়ে দিতে হবে 16002 নম্বরে। ফিরতি মেসেজে ফোনটি আসল কিনা তা জানানো হবে। আর ফোনের আইএমইআই নম্বর জানতে *#06# নম্বরে ডায়াল করতে হবে।

 

 

 

 

 

ইতোমধ্যে যা বিষয়টি জেনেছেন তারা নিজেদের ফোনগুলো পরখ করে নিচ্ছেন। এরইমধ্যে কালের কণ্ঠকে কয়েকজন জানিয়েছেন, তারা আইএমইআই নম্বর চেক করে তাদের মোবাইল ফোন সম্পর্কে কোনো তথ্য পাননি।

 

 

 

 

অর্থাৎ, তাদের ফোনটির তথ্য বিটিআরসি’র ডেটাবেইজে সংরক্ষিত নেই। তারা প্রত্যেকেই নতুন ফোন কিনেছেন ঢাকার বিভিন্ন মোবাইল বিক্রেতাদের কাছ থেকে।

 

 

 

 

 

তারা যে ফিরতি মেসেজটি পাচ্ছেন তা এরকম-
ডিভাইসটির IMEI বিটিআরসি’র ডাটাবেইজে পাওয়া যায়নি, দয়া করে পূর্ণাঙ্গ IMEI (/,#.- সহ অন্যান্য বিশেষ চিহ্ন বাদে শুধুমাত্র ১৫টি নম্বর) লিখে পুনরায় চেষ্টা করুন। KYD 15 Digit IMEI Number লিখে 16002 তে পাঠিয়ে দিন

 

 

 

 

বিটিআরসি কর্মকর্তারা জানান, ক্লোন আইএমইআই মোবাইলগুলো অবৈধ উপায়ে দেশে প্রবেশ করে। তাছাড়া অনিবন্ধিত ফোন ট্র্যাক করা ঝামেলাপূর্ণ দেখে অপরাধ প্রবণতাও বাড়ছে।

 

 

 

 

এর আগে জানুয়ারিতে বিটিআরসি ৭০০ মোবাইল ফোন জব্দ করে যেগুলো অবৈধভাবে দেশে প্রবেশ করেছে।