প্রথমবার্তা স্পোর্টস ডেস্ক : ‘পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র।’ ট্যুইটারে এই মন্তব্যে লাইক করে বিতর্কে জড়ালেন পাকিস্তানি পেসার মুহাম্মদ আমির। এই বিতর্কের সূত্রপাত্‍ অবশ্য তার ব্রিটিশ নাগরিকত্বের আবেদন ঘিরে।

 

 

 

 

 

ট্যুইটে এক ব্যক্তি আমিরের নাগরিকত্বের প্রসঙ্গ তুলে মন্তব্য করেন, ‘পাকিস্তানকে সম্প্রতি সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র ঘোষণা করা হয়েছে।’

 

 

 

সাতপাঁচ না ভেবেই সেই মন্তব্যে লাইক করে বসেন আমির। সেই ট্যুইটের স্ক্রিন শটে তোলপাড় শুরু হতেই তড়িঘড়ি নিজের ভুল সুধরে নেন আমির। প্রকাশ্যে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘ভুল করেই লাইক করেছিলাম।’

 

 

 

 

আইসিসি বিশ্বকাপের পরপরই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেন পাকিস্তানি পেসার মুহাম্মদ আমির। সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপেও ভালো বল করেন তিনি। টেস্ট ক্রিকেট থেকে তার সরে দাঁড়ানো নিয়েও বিতর্ক হয়েছে।

 

 

 

 

ওয়াসিম আকরাম থেকে শোয়েব আক্তার– সকলেই একমত, পাকিস্তানের ক্রিকেটকে আমিরের এখনও অনেক কিছু দেওয়ার বাকি। তাদের মতে, ২৭ বছর যেকোনও ক্রিকেটারের কাছে পিক টাইম। অবসর ঘোষণার সময় নয়। আমির যদিও নিজের সিদ্ধান্তে অবিচল।

 

 

 

জানা গেছে, আমিরের স্ত্রী ব্রিটিশ নাগরিক। যে কারণে তিনি ব্রিটিশ পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছেন। তার এই ব্রিটিশ নাগরিকত্ব চাওয়া নিয়েও একপ্রস্থ বিতর্ক হয়েছে। যদিও পাকিস্তানের সাংবাদিক সাজ সাদিকের মতো কয়েকজনকে পাশে পেয়েছেন মুহাম্মদ আমির।

 

 

 

 

 

 

পাকিস্তানি ওিই সাংবাদিক লেখেন, ‘এটা বুঝতে পারছি না আমিরের ব্রিটিশ পাসপোর্টের আবেদন নিয়ে এত কথা কেন হচ্ছে। তার ব্রিটিশ পাসপোর্টের আবেদন করার অধিকার আছে। তার মানে এই নয় যে, তিনি পাকিস্তানের হয়ে আর খেলবেন না।