প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: কারাগারে থাকা পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানের (সাময়িক বরখাস্ত) জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

 

 

 

 

 

আজ বুধবার ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

 

 

 

 

 

মামলায় এ আসামি গত ১ জুলাই হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন। যার ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এসএম কুদ্দুস জামানের বেঞ্চ জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেন এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিম্ন আদালতে হাজির করতে নির্দেশ দেন।

 

 

 

 

 

সে অনুযায়ী গত ২ জুলাই এ আসামিকে নিম্ন আদালতে হাজির করা হলে তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান। পরবর্তীতে গত ২৪ জুলাই তার পক্ষে এ জামিনের আবেদন করা হলে ৩১ জুলাই শুনানি দিন ঠিক করা হয়।

 

 

 

 

এদিন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের সাবেক পাবলিক প্রসিকিউটর এহসানুল হক সমাজী জামিনের পক্ষে এবং দুদকের প্রসিকিউটর মোশারফ হোসেন কাজল জামিনের বিরোধীতা করেন।

 

 

 

 

 

চলতি বছর ২৪ জুন এ মামলা করেন দুদকের পরিচালক মঞ্জুর মর্শেদ। মামলায় মিজানের স্ত্রী সোহেলিয়া আনার রত্মা, ভাগ্নে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান ও ছোট ভাই মাহবুবুর রহমানকেও আসামি করা হয়।

 

 

 

 

 

 

মামলায় তিন কোটি ২৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং তিন কোটি সাত লাখ পাঁচ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয়। মামলায় তিনি চার কোটি ৪২ লাখ ৪৯ হাজার ৬২৪ টাকার সম্পদের হিসাব দাখিল করেন।

 

 

 

 

প্রসঙ্গত, পুলিশের এ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদক কর্মকর্তাকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ প্রদানের একটি মামলাও করেছে দুদক। ওই মামলায় গত ২১ জুলাই তাকে গ্রেপ্তারও দেখিয়েছেন আদালত। মামলাটিতে ঘুষ প্রহণকারী দুদক পরিচালক (সাময়িক বরখাস্ত) খন্দকার এনামুল বাছিরও আসামি।