প্রথমবার্তা স্পোর্টস ডেস্ক : বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নতুন স্পিন বোলিং কোচ হতে যাচ্ছেন ড্যানিয়েল ভেট্টোরি।

 

 

 

 

কোচদের আন্তর্জাতিক বাজারে কিউই এই সাবেক অলরাউন্ডারের চাহিদা আছে।

 

 

 

 

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট যুগে ডাগআউটে তার মতো একজন কিংবদন্তি থাকলে বাজারটাও ভালো জমে। যে কারণে চড়া সম্মানী দিতে হয় ভেট্টোরির মতো নতুন কোচকেও।

 

 

 

 

বিসিবিও মোটা অঙ্কের সম্মানী দিয়ে স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে তাকে।

 

 

 

ক্রিকেটপাড়ার গুঞ্জন, দিনে প্রায় পাঁচ হাজার ডলার (চার লাখ বিশ হাজার টাকা) সম্মানী নেবেন তিনি। একশ’ দিনে প্রায় পাঁচ লাখ ডলার।

 

 

 

 

নাম গোপন রাখার শর্তে বিসিবির একজন পরিচালক জানান, ভেট্টোরি বড় ক্রিকেটার ছিলেন, তবে কোচ হিসেবে পরীক্ষিত নন। যেটা শুনছি, একশ’ দিন কাজ করলে পাঁচ লাখ ডলার সম্মানী নেবেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

এদিকে ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট হলে এই টাকা ঠিক ছিল। কিন্তু একটা জাতীয় দলের স্পিন কোচ হিসেবে সম্মানীটা বেশি মনে হচ্ছে।

 

 

 

 

 

তবে বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, ভেট্টোরিকে অত বেশি সম্মানী দেওয়া হচ্ছে না।

 

তবে বিসিবির বেশিরভাগ পরিচালকই জাতীয় দলের বিদেশি কোচিং স্টাফের বেতন সম্পর্কে জানেন না। তাই পরিচালকদের অধিকাংশই ভেট্টোরির সম্মানী নিয়ে ধোঁয়াশায়।

 

 

 

 

যেমন পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়া বলছেন, একশ’ দিনে দুই লাখ ডলার দেওয়া হবে ৪০ বছর বয়সী এ স্পিন কোচকে। অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বাকি কোচদের মতোই পাবেন।

 

 

 

বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী নতুন স্পিন বোলিং কোচের প্রকৃত বেতন সম্পর্কে বলতে রাজি হননি।

 

 

 

 

 

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘ভেট্টোরিকে বাজারমূল্যের চেয়েও কম সম্মানী দেওয়া হচ্ছে। অবশ্যই সেটা দিনে পাঁচ হাজার ডলার না। তিন লাখের চেয়েও কম দেওয়া হচ্ছে।’

 

 

 

এদিকে একশ’ দিনে তিন লাখ হলে দিনে তিন হাজার ডলার সম্মানী। বাকি সুযোগ-সুবিধা এবং বোনাস মিলে সেটা পাঁচ হাজার ডলার হতেও পারে। তবে ল্যাঙ্গেভেল্টের বেতন প্রায় ১৫ হাজার ডলার বলে জানা গেছে।

 

 

 

তাছাড়া সাবেক পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশও ১৫ হাজার ডলার বেতন পেতেন বিসিবি থেকে।

 

 

 

 

 

তবে বাংলাদেশের কোচদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেতন নিয়েছেন সাবেক প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে, মাসে ২৬ হাজার ডলার।