প্রথমবার্তা স্পোর্টস ডেস্ক : কী করলে বিশ্বজুড়ে মেসি ভক্তরা সবচেয়ে বেশি মন খারাপ করে? উত্তরটা খুবই সহজ। কেউ লিওনেল মেসির তুলনায় ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে এগিয়ে রাখলে।

 

 

 

 

মানে মেসির চেয়ে রোনালদোকে বেশি ভালো করলে। এবার এই কাজটাই করলেন বিরাট কোহলি। ভারতের ক্রিকেট অধিনায়ক বিশ্বজুড়ে মেসি ভক্তদের গায়ে আগুন জ্বালিয়ে ‘বেশি ভালো’র সার্টিফিকেট দিলেন রোনালদোকে।

 

 

 

 

বললেন, মেসির চেয়ে রোনালদো বেশি সফল। মেসির চেয়ে রোনালদো বেশি চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন, রোনালদোর ক্যারিয়ার বেশি ভালো, ইত্যাদি ইত্যাদি!

 

 

 

 

বিরাট কোহলি নিশ্চিতভাবেই বর্তমানের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। রেকর্ড, পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে কেউ কেউ সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবেই আখ্যায়িত করেন।

 

 

 

 

 

ওয়ানডেতে সবচেয়ে দ্রুত ১০ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়ার রেকর্ডে মালিক কোহলিকে এবার অন্যতম এক সম্মানে ভূষিত করেছে ইএসপিএস।

 

 

 

 

 

এ বছর বিশ্বের সব খেলার সব ক্রীড়া তারকাদের মধ্যে থেকে সেরা ১০০ জনের একটা তালিকা করেছে ইএসপিএন। সেরাদের সেই তালিকায় ভারত অধিনায়ক জায়গা করে নিয়েছেন ৭ নম্বরে।

 

 

 

 

স্পেনের টেনিস কিংবদন্তি রাফায়েল নাদাল, যুক্তরাষ্ট্রের কিংবদন্তি গলফার টাইগার উডসরাও কোহলির পেছনে!

 

 

 

এমনকি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী মিডফিল্ডার পল পগবার চেয়ে ডাবলেরও বেশি অনুসারী কোহলির!

 

 

 

 

এই বিশ্বজুড়ে এত সম্মান, জনপ্রিয়তা-কোহলি সবই অর্জন করেছেন মাঠের বাইশগজি সীমানায় ব্যাট হাতের কারিশমা দিয়ে। তবে এবার জানা গেল ক্রিকেট তার নেশা-পেশা হলেও ফুটবলের প্রতিও তার ভালো লাগা, ভালোবাসা অন্য রকম।

 

 

 

ফুটবল এবং তারকা ফুটবলারদের খোঁজখবর রাখেন নিয়মিত। হালের দুই সেরা ফুটবলার মেসি-রোনালদোকে খুব ভালো করে পর্যবেক্ষণ করেন।

 

 

 

 

কোহলির সবচেয়ে বড় গুণ, তার জয় ক্ষুধা প্রচণ্ড। হারতে পছন্দ করেন না। হারার আগে হারেন না। কোহলির দাবি, এই অনুপ্রেরণাটা তিনি পেয়েছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর কাছ থেকে।

 

 

 

 

সম্প্রতি ফিফা ডটকমকে দেওয়া এক দীর্ঘ সাক্ষাৎকারেই এসব কথা বলেছেন কোহলি।

 

 

 

 

 

বিশ্বের কোন কোন ফুটবলারের খেলা আপনার বেশি ভালো লেগেছে, কাদের খেলা আপনি বেশি উপভোগ করেন, এমন প্রশ্নের উত্তরে কোহলি বলেছেন, ‘রোনাল্ডো (ব্রাজিলিয়ান), রোনালদিনহো, অলিভার কান, লুকা মড্রিচ, (আন্দ্রেস) ইনিয়েস্তা, জাভি (হার্নান্দেজ), (লিওনেল) মেসি, এবং ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। তবে আমার মতে, এদের মধ্যে ক্রিস্তিয়ানোই সবার উপরে।’

 

 

 

কেন রোনালদো সবার উপরে, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন কোহিল, ‘আমার মতে, রোনালদো বেশি চ্যালেঞ্জ নিয়েছে। সবগুলোতে সফলও হয়েছে সে। সেই সবচেয়ে পরিপূর্ণ খেলোয়াড়। সে কি পরিমাণ পরিশ্রম করে, আমি দেখেছি। এর কোনো তুলনা হয় না। সে আমাদের জন্যই অনুপ্রেরণা।

 

 

 

 

 

 

আমি তার কাজ-অর্জনে মুগ্ধ। আমার মনে হয় না, খুব বেশি মানুষ তার মতো পরিশ্রম করতে পারবে। তার মধ্যে একজন সত্যিকার নেতার সত্ত্বাও আছে যা আমার খুব ভালো লাগে। তার আত্মবিশ্বাস্য অবিশ্বাস্য পর্যায়ের।’

 

 

 

 

পরিসংখ্যানও কোহলির রায়কেই সমর্থন করে। মেসি এবং রোনালদো, দুজনেই সমান ৫টি করে ব্যালন ডি’অর জিতেছেন। মেসি হয়তো লিগ শিরোপা জেতার দৌড়ে অনেক এগিয়ে।

 

 

 

 

তবে রোনালদো তিনটি ভিন্ন দেশের লিগে শিরোপা জিতেছেন। তাছাড়া মেসির সব অর্জনই ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে। সিনিয়র ক্যারিয়ারে আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের হয়ে এখনো পর্যন্ত কিছুই জিততে পারেননি।

 

 

 

 

বিপরীতে রোনালদো পর্তুগাল জাতীয় দলের হয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন। কদিন আগে জিতেছেন ইউরোপিয়ান নেশনস লিগ শিরোপাও।

 

 

 

 

মেসি-রোনালদোর প্রসঙ্গের পাশাপাশি কোহলি কথা বলেছেন ফুটবলের ভবিষ্যত সম্পর্কেও। ভবিষ্যতে মেসি-রোনালদোর জায়গা নেবেন কে, এই প্রশ্নের উত্তরও কোহলি দিয়েছেন ফুটবলবোদ্ধার মতোই।

 

 

 

 

বলেছেন, ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী তারকা কিলিয়ান এমবাপের কথা, ‘আমার চোখে এমবাপে অসাধারণ। (বিশ্বকাপে) আর্জেন্টিনার ম্যাচে সে যে গতিতে বল নিয়ে বেরিয়ে গিয়েছিল, সত্যিই তা ভোলা কঠিন। সে একটা দানব (ইতিবাচক অর্থে)। অবশ্যই সে একদিন সেরাদের সেরা হবে। সেরা হওয়ার সব গুণই তার মধ্যে আছে। নিঃসন্দেহে সে বিশ্বমানের খেলোয়াড়।