প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: ক্রিকেটারদের সাথে চুক্তির ক্ষেত্রে এবার বড় পরিবর্তন ঘটালো পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এছাড়াও পুরো কোচিং স্টাফেই রদবদল আসছে। এ নিয়ে শুরু হয়েছে সমালোচনা। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে তিনটি ক্যাটাগরিতে রাখা হয়েছে ১৯ জন ক্রিকেটারকে। গতবার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ছিলেন ৩৩ ক্রিকেটার।

চুক্তি বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন পাকিস্তানের সাবেক খেলোয়াড়রা। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক রশিদ লতিফ, বায়জিদ খানসহ ক্রীড়াঙ্গনের বিভিন্ন পর্যায়ের মানুষ নতুন এ সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন। এর আগে পিসিবি পাকিস্তানের প্রধান কোচ মিকি আর্থারকে ছাটাই করে। গোটা কোচিং স্টাফেও পরিবর্তন এসেছে। বোলিং কোচ আজহার মাহমুদ, ব্যাটিং কোচ গ্রান্ট ফ্লাওয়ার এবং ট্রেনার গ্রান্ট লুডেনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এই চার জনের কারও সঙ্গে নতুন করে চুক্তি নবায়ন করছে না পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।

এ বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) ম্যানেজিং ডিরেক্টর ওয়াসিম খান বলেছেন, প্রতিটি ক্যাটাগরিতেই আগের চেয়ে অর্থনৈতিক সুবিধা বাড়ানো হয়েছে। এছাড়াও বর্তমান চুক্তির চেয়ে নতুন চুক্তিতে প্রতিটি ক্যাটাগরিতেই সুযোগ সুবিধা বাড়ানো হয়েছে। আমরা আশা করি খেলোয়াড়রা মাঠে শতভাগ উজার করে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করে আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হাসিল করবেন।

গত এক বছরের ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সকে বিবেচনা করে ক্যাটাগরি করা হয়। ‘এ’, ‘বি’ এবং ‘সি’- এই তিনটি ক্যাটাগরিতে ১ আগস্ট ২০১৯ থেকে ৩০ জুন ২০২০ সাল পর্যন্ত পিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকবেন এই ১৯ পাকিস্তানি ক্রিকেটার। এর মধ্যে পাকিস্তান ছয়টি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপস, তিনটি ওয়ানডে আর ৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বলে জানা যায়।

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে যারা আছেন- 

ক্যাটাগরি এ: বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদ এবং ইয়াসির শাহ।

ক্যাটাগরি বি: আসাদ শফিক, আজহার আলি, হারিস সোহেল, ইমাম উল হক, মোহাম্মদ আব্বাস, শাদাব খান, শাহিন শাহ আফ্রিদি এবং ওয়াহাব রিয়াজ।

ক্যাটাগরি সি: আবিদ আলি, হাসান আলি, ফখর জামান, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ রিজওয়ান, শান মাসুদ এবং উসমান শিনওয়ারি।