প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:    আজ সোমবার ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীতে বিপুলসংখ্যক পশু কোরবানি দেওয়া হচ্ছে। এতে ১৮ লাখ টন বর্জ্য তৈরি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে, যা অপসারণ কাজ শুরু হচ্ছে দুপুরে। এজন্য রাজধানীজুড়ে কাজ করবেন প্রায় ১৪ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী।

 

 

 

 

 

রাজধানীবাসীকে স্বস্তি দিতে বরাবরের মতোই কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে ব্যবস্থা নেয় সিটি করপোরেশন। ঢাকা উত্তর (ডিএনসিসি) ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের কর্মকর্তারা ব্যস্ত থাকবেন বর্জ্য অপসারণে।

 

 

 

 

ঈদের আগে শনিবারের মধ্যেই বিভিন্ন ওয়ার্ডে  ওয়ার্ডে পৌঁছে গেছে বর্জ্য বহনকারী ব্যাগ, বস্তা, ব্লিচিং পাউডার, ফিনাইলসহ অন্য যাবতীয় জিনিস। এছাড়াও পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের পাশাপাশি প্রস্তুত রাখা হয়েছে বর্জ্য অপসারণের জন্য বিভিন্ন ধরনের যানবাহন।

 

 

 

 

 

সোমবার দুপুর ২টায় উত্তরা থেকে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম।দুপুর পৌনে ৩টায় ধোলাইখালের সাদেক হোসেন খোকা মাঠের সামনের জায়গা থেকে নিজ এলাকায় বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

 

 

 

 

 

বর্জ্য অপসারণে ডিএনসিসিতে এবার প্রায় ছয় হাজার কর্মী কাজ করবে। এদের মধ্যে ডিএনসিসির নিয়মিত কর্মী প্রায় আড়াই হাজার এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পিডাব্লিউসিএসপিএর প্রায় সাড়ে চার হাজার কর্মী বর্জ্য অপসারণে কাজ করবে।

 

 

 

 

 

বর্জ্য অপসারণে ডিএসসিসির নিয়মিত কর্মী থাকবেন পাঁচ হাজার ২শ ৪১ জন। সঙ্গে থাকছে পিডাব্লিউসিএসপিএর প্রায় তিন হাজার কর্মী। এছাড়াও দ্রুততম সময়ে বর্জ্য অপসারণে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া পরিচ্ছন্নতাকর্মী থাকছে দুই সিটিতেই।

 

 

 

 

 

উভয় সিটি করপোরেশন থেকে সব মিলিয়ে ১৪ হাজারের বেশি পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবার থাকছে রাজধানীতে কোরবানি হওয়া পশুর বর্জ্য অপসারণ মিশনে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সব বর্জ্য অপসারণের চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।