প্রথমবার্তা, রিপোর্ট:     প্রকৃতির অপরূপ লীলা নিকেতন মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত। এটির রহস্যর শেষ নেই। জলপ্রপাতের দূর থেকে সৌন্দর্য দেখা যাবে। কিন্তু কাছে যাওয়া যাবে না, গেলে মৃত্যু হতে পারে। গত কয়েকবছর অসেচতনতার কারণে এখানে ৩৩ জন পর্যটকের প্রাণ গেছে। এদের মধ্যে বেশির ভাগ কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী।

 

 

 

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত দেখতে অনেক সুন্দর। প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক এখানে আসেন। জলপ্রপাত রহস্যর কারণে এটি দুর থেকে দেখা গেরেও কাছে যাওয়া যায়না। আগে এক সয়ম নাকি কাছে যাওয়া যেত। কিন্তু মানুষ মারা যাওয়ার কারণে দড়ি টেনে মানুষকে এর কাছে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।সেখানে দায়িত্বরত এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, জলপ্রপাত নিতে রহস্য রয়েছে। অনেক মানুষ জলপ্রপাতের নিচে গিয়ে নিখোঁজ হয়। কয়েকদিন পর লাশ হয়ে ভেসে উঠে। এ কারণে আমরা জলপ্রপাতের কাছে কাউকে যেতে দেয়না। একটু দুর থেকে এটির সৌন্দর্য দেখা যায়। এটি অনেক সুন্দর।

 

 

 

 

 

 

 

কতজন মানুষ মরা ও নিখোঁজ হয়েছে জলপ্রপাতের কাছে গিয়ে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এর হিসেব নেই আমার কাছে তবে, অনেক লোক মারা গেছে এটা আমি শুনেছি।জানা যায়, প্রকৃতির অপরূপ লীলা নিকেতন মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র জলপ্রপাত মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত। এটি দেখতে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন অনেক লোকের সমাগম ঘটে এখানে। প্রায় ২০০ ফুট উঁচু পাহাড়ের উপর থেকে জলরাশি এর গা বেয়ে অবিরাম ধারায় সাঁ সাঁ শব্দে নিচে পড়ছে। অবিরাম পতনের ফলে নিচে সৃষ্টি হয়েছে কুণ্ডের। আর কুণ্ডের প্রবাহমান স্রোতধারা শান্তির বারিধারার মতো মাধবছড়া দিয়ে প্রবাহিত হয়।