প্রথমবার্তা, রিপোর্ট:         জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী দেশগুলোর কাছ থেকে ন্যায্য ক্ষতিপূরণ আদায়সহ নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে ৫ দফা উত্থাপন করা হয়েছে। ওই দাবি আদায়ে স্পেনের মাদ্রিদে অনুষ্ঠিতব্য কপ-২৫ সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা কার্যকর উদ্যোগ নিবেন বলে আশা প্রকাশ করা হয়েছে।আজ সোমবার রাজধানীর শ্যামলীতে নেটওয়ার্ক অন ক্লাইমে চেঞ্জ ইন বাংলাদেশ (এনসিসি’বি) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত ‘ন্যাশনাল ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যাডভোকেসি ফোরাম’-এর সভায় এই দাবি জানানো হয়।

 

 

 

 

 

 

 

উন্নয়ন ধারা ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী মো. আমিনুর রসুলের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা)’র যুগ্ম সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, এনসিসিবি’র রিসার্চ অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি অফিসার মাহবুবুর রহমান অপু, সিনিয়র সাংবাদিক নিখিল ভদ্র, ল্যান্ড নেটওয়ার্কের সমন্বয়কারী সরকার মোহাম্মদ আলী, পার্লামেন্ট নিউজ-এর সম্পাদক সাকিলা পারভীন, ডাব্লিউবিবি ট্রাস্টের প্রজেক্ট অফিসার সামিউল হাসান, ইনস্টিটিউট অব ওয়েলবিং-এর প্রতিনিধি এ এন এম মাসুম বিল্লাহ, এনভায়রনমেন্ট ডিফেন্স নেটওয়ার্কের আল ফুরকান, এনসিসিবির কর্মী আল ইমরান প্রমূখ।সভায় উত্থাপিত দাবিনামায় বলা হয়, জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত সমঝোতা প্রক্রিয়াতে বাংলাদেশের অবস্থান নির্ধারণে জলবায়ু বিশেষজ্ঞ, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা, গবেষণা প্রতিষ্ঠান, সুশীল ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের প্রতিনিধিদের মতামত ও কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। জলবায়ুর অভিঘাত মোকাবেলায় স্বল্পোন্নত দেশগুলির পাশে আর্থিক, কারগরি ও প্রযুক্তিগত সহযোগিতা নিয়ে উন্নত বিশ্বের দেশগুলির কার্যকর উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে। দুর্যোগের কারণে সৃষ্ট ক্ষয়-ক্ষতির জন্য বীমা, ঋণ কিংবা অনুদানের পরিবর্তে উন্নত বিশ্বের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ আদায় করতে হবে। জলবায়ু বাস্তুচ্যুত ও অভিবাসীদের জন্য পৃথক তহবিল ও পরিকাঠামো তৈরি করতে হবে। সর্বোপরি প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমণ কমানোর বৈশ্বিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য চুক্তি স্বাক্ষরকারী দেশ সমুহকে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে।

 

 

 

 

 

 

ওই সভায় বক্তারা বলেন, বৈশ্বিক জলবায়ুর পরিবর্তনের বিষয়ে এখন কোনো বিতর্কের অবকাশ নেই।, জলবায়ুর পরিবর্তনের জন্য দায়ী মূলত উন্নত বিশ্বের দেশগুলি, কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সংকটে পড়েছে অনুন্নত, উন্নয়নশীল ও দরিদ্র দেশসমূহ। স্বল্প সামর্থ্য নিয়ে দরিদ্র দেশগুলোকে যেখানে নানা রকম সংকট মোকাবেলা করতে হয়, সেখানে জলবায়ু অভিঘাত মোকাবেলা করার সামর্থ্য দরিদ্র দেশগুলোর নেই। তাই সংকট মোকাবেলায় প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনের অঙ্গিকার বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা জরুরি।

এই বিভাগের আরো খবর :

ঢাকায় বন্ধ নতুন গাড়ির রুট পারমিট
রোহিঙ্গাদের ফেরানোর পরিবেশ সৃষ্টি রাখাইনের উন্নয়নে আড়াই কোটি মার্কিন ডলার দেবে ভারত
আকাশবীণা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
বর্তমান মেয়াদে মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠক শুরু
প্রচণ্ড গরমে বিপর্যস্ত অস্ট্রেলিয়া
হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে ফৌজদারী অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের!
অবশেষে ‌‘সেই’ গলাকাটা ৪ যুবকের পরিচয় মিলল
পাঁচদিনে ১ লাখ ৩১ হাজার মামলা, জরিমানা ৩ কোটি
শেখ রেহানার জন্মদিন কাল
বিএনপির চার হাজার মনোনয়নপত্র বিক্রি
সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
সম্রাট কাশিমপুর কারাগারে.....
প্রধানমন্ত্রী আমাকে মন্ত্রী হতে বলেছিলেন : শামীম ওসমান
মামলার জট নিরসন হচ্ছে