প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   হলদেরঙা আঠালো দুধ- হ্যা ঠিকই শুনেছেন। এটিকে বিজ্ঞানের ভাষায় বলে কলোস্ট্রাম। গর্ভবস্থায় নারীর ব্রেস্ট থেকে যে প্রথমবারের মতো দুধ বেরায় সেটিই কলোস্ট্রাম হিসাবে পরিচিত। গর্ভবতী থাকাকালীন ৩-৪ মাসের মধ্যে নারীর দেহে একটা ফ্লুইড তৈরী হয়ে থাকে।

 

 

 

 

এটি ফ্লইডটি কিছু জনের স্বচ্ছ হলেও অধিকাংশ নারীরই এই ফ্লুইড গাঢ় হলদেটে তরল হয়ে থাকে।সেই জন্য এটিকে তরল সোনাও বলা হয়ে থাকে।

 

 

 

গর্ভবস্তায় মেয়েদের বুকের হলদেরঙা আঠালো দুধ আসলে অমৃত,কেন জানেন?

বেশীরভাগ নারীরাই জানেনা হয়তো এই ফ্লুইডের উপকারীরা সম্বন্ধে। এটি অ্যান্টিবডিতে পরিপূর্ণ,যার মধ্যে উচ্চমাত্রাতে প্রোটিন পাওয়া যায়।

 

 

 

 

তবে এতে কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাটের পরিমাণ কম আছে। এটি সদ্যজাত শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে। তাই বাচ্চাকে সুস্থ সবল রাখার জন্য অবশ্যই পান করান এই ফ্লুইড।

 

 

 

 

গর্ভবস্তায় মেয়েদের বুকের হলদেরঙা আঠালো দুধ আসলে অমৃত,কেন জানেন?

সবচেয়ে ভালো বিষয় হলো শিশুর জন্মের পিরেই ক্ষরিত হয় এই ফ্লুইড। গবেষণায় পাওয়া গেছে শিশুর জন্মের ৪৮ থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে প্রায় ৫০ মিলিলিটার কলোস্ট্রাম ক্ষরিত হয়।

 

 

 

 

 

যেটি শিশুদের হজম করতেও কোনো অসুবিধা হয়না। মনে রাখবেন, প্রচুর অ্যানন্টিবডি থাকার জন্য এটি শিশুর একধরণের ভ্যাক্সিনেশনও বলা যেতে পারে।