প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ    একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতে কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলা এলাকায় বইতে শুরু করেছে উপজেলা নির্বাচনের হাওয়া। নির্বাচন কশিমন এরইমধ্যে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার কথা রয়েছে। মার্চেই হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।

 

 

 

 

এবারই প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হতে যাচ্ছে। নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী আর সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখন দলীয় মনোনয়নের জন্য দৌড়ঝাঁপ করে ব্যস্ত কে কোথায় প্রার্থী হচ্ছেন। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের মাথা ব্যাথা থাকলেও শরিক দলগুলোকে তেমন একটা দেখা যাচ্ছে না। আর বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার চিত্র এখন চুপচাপ নিরবতা।জাতীয় নির্বাচনের মতো ভরাডুবি হবে কি না এই ভেবে। তাই নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহ নেই তাদের। ইতিমধ্যে জেলার ছয়টি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সবখানেই চলছে নির্বাচনী আলাপ। আর সম্ভাব্য প্রার্থীরা নেমেছেন গণসংযোগে। আর পড়া মহল্লার চায়ের দোকানে অবস্থান নেওয়া ভোটাররা আলোচনা করছেন তাদের দাবি দাওয়া নিয়ে।

 

 

 

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সম্ভাব্য প্রার্থীরা তৎপর হয়ে উঠলেও বিএনপির বেলায় দেখা গেছে নেতাকর্মীরা চুপচাপ নিরবতায় রয়েছেন।কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন জানান, দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিবে কি না। তাই এখন দলীয় নেতাকর্মীরা চুপচাপ রয়েছে। দলীয় সিদ্ধান্ত এলেই নেতাকর্মীরা ভাবতে শুরু করবে নির্বাচন নিয়ে। তার আগে কিছুই বলা সম্ভব না।

 

 

 

 

এদিকে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী জানান, আ’লীগ নির্বাচন করার দল। তাই এরইমধ্যে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠে নেমেছেন চালাচ্ছেন গণসংযোগ। আশা করি সকল দলই এ নির্বাচনে অংশ নিবে।