প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  সারাদেশের মাদরাসা পরিচালনা কমিটিতে যে নৈরাজ্য চলছে তা দূর করার এখোনি মোক্ষম সময়। নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের মধ্যে দিয়ে এ বিষয়টি আরো সুস্পষ্ট হলো। আজ রবিবার সকালে ফেনীর সোনাগাজী ইসলামীয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদেরকে এসব কথা বলেন মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর একে এম সাইফ উল্লাহ।

 

 

 

 

 

প্রফেসর সাইফ উল্লাহ আরো বলেন, ভবিষ্যতে মাদরাসা পরিচালনা কমিটিতে কোনো অশিক্ষিত অযোগ্য লোকের ঠাঁই হবে না। আমি বিশ্বাস করি এ ধরনের নির্মম ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের সর্ব্বোচ শাস্তি হবে। আমরা ইতোমধ্যে সারাদেশে ৫ সদস্য বিশিষ্ট যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি গঠনের কাজ শুরু করেছি।

 

 

 

 

 

সিরাউদ্দৌলার মতো এ চরিত্রের শিক্ষকদের ব্যাপারেও আমরা খোঁজ খবর নিচ্ছি ভবিষ্যতে কোনো শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী নিপীড়নের প্রমাণ পাওয়া গেলে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

 

 

 

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী সলিমুল্লাহ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নূরুল আমিন, পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব নূরুল আফছার ফারুকী ও মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. হোসাইন।