প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  সুবীর নন্দীকে আগামীকাল সিঙ্গাপুরে পাঠানো হচ্ছে। সেখানের কোন হাসপাতালে ভর্তি করা হবে সে বিষয়ে আলোচনা চলছে। রবিবার বিকেলে বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের জাতীয় সমন্বয়ক ডা. সামন্তলাল সেন। ডা. সামন্তলাল সেন সুবীর নন্দীর আত্মীয় এবং তিনি কণ্ঠশিল্পীর চিকিৎসার বিষয়টি দেখভাল করছেন।

 

 

 

 

 

আজ রোববারই আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর থেকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা রয়েছে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে এবং বিদেশে নেওয়ার সক্ষমতা তৈরি হলে সুবীর নন্দীকে যেন উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। বিষয়টি নিয়ে চিকিৎসকেরা সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন।

 

 

 

 

 

ডা. সামন্তলাল সেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ছিল সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দীকে যেন বিদেশে নেওয়া হয়। আমরা সিঙ্গাপুরে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছি। এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাঁকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হবে। আগামীকাল সোমবার তাকে সিঙ্গাপুরে নেব। সেখানের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা হচ্ছে।’ তবে সিঙ্গাপুরের কোন হাসপাতালে নেওয়া হবে সেটা তিনি জানাননি।তিনি বলেন, সুবীর নন্দীর শারীরিক অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন। তাঁর মস্তিষ্কের অবস্থা ভালো না। ফুসফুসের প্রদাহ নিয়ে এখনো ঝুঁকি রয়েই গেছে।

 

 

 

 

 

সুবীর নন্দী দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে ঢাকার সিএমএইচের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। সেখানে তিনি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. তৌফিক এলাহির তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন। পাশাপাশি সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখে তার চিকিৎসা চলছে।

 

 

 

 

 

একুশে পদকপ্রাপ্ত শিল্পী সুবীর নন্দীকে গত ১৪ এপ্রিল সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। এদিন ট্রেনযোগে শ্রীমঙ্গল থেকে ঢাকায় আসার পথে কয়েকবার তিনি বমি করেন, গলায় প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করেন। খুব অসুস্থ বোধ করায় তাকে সিএমএইচে নেয়া হয়। সেখানে নেয়ার কিছুক্ষণ পর তার হার্ট অ্যাটাক হয়। এরপরই তাকে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয়।

 

 

 

 

 

 

জানা যায়, তিনি বহুদিন ধরে দীর্ঘমেয়াদী কিডনি রোগে ভুগছেন ও ডায়ালাইসিস নিচ্ছেন। ২০১৩ সালে আমেরিকায় তার বাইপাস সার্জারি হয় এবং এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে আবার এনজিওপ্লাস্টি করা হয়। সিএমএইচের ইমার্জেন্সিতে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার আগে তার রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা ছিল অনেক বেশি।