প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  ভারতে চলছে লোকসভা নির্বাচন। দেশটির পশ্চিমবঙ্গে জমজমাট লড়াই চলছে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে। চতুর্থ দফা নির্বাচন শেষ হয়েছে গতকাল। আর পশ্চিমবঙ্গে ভোটের রাজনীতি দেখা গেছে ক্রিকেটার, অভিনেতা, অভিনেত্রীদের।সোমবার চতুর্থ দফার নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়ে এক তৃণমূল প্রার্থীর মন্তব্যে মেজাজ হারালেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা। আর সেই ক্ষোভ টুইটারে প্রকাশ করেন অভিনেত্রী।

 

 

 

 

 

টুইটারে স্বস্তিকা লিখেছেন, পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া আর দেশের আর কোথাও সংঘর্ষ হয়নি। একইসঙ্গে তৃণমূল প্রার্থীর ‘বেড টি’ মন্তব্যেও ক্ষুব্ধ অভিনেত্রী। স্বস্তিকা লিখেছেন, ‘খুব দুঃখ লাগছে বাংলা জ্বলছে। সাধারণ মানুষকে মারধর করা হচ্ছে। ভোট না দিয়েই ফিরে আসছেন মানুষ। মমির ভূমিকায় পুলিশ। নির্বাচনের উদ্দেশ্যটা কী? এটা গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের নামে কী ধরনের প্রহসন?’

 

 

 

 

 

স্বস্তিকা আরও লিখেছেন, ‘আসানসোলবাসী নিরাপদে থাকুন। ভোট দেয়ার জন্য বেরিয়ে প্রাণহানি কাম্য নয়। দেশের আর কোথাও এই ধরনের হিংসা হচ্ছে না। শুধুমাত্র বাংলায় এটা হচ্ছে।’

 

 

 

 

 

এর পাশাপাশি রাজনীতিবিদদেরও খোঁচা দিয়েছেন অভিনেত্রী। স্বস্তিকার মতে, ‘রাজনীতিতে যোগ দিলে আর কেউ মানুষ থাকে না। আপনি রাজনীতিবিদ হয়ে যান। রাজনীতিবিদরা মানুষও নন, প্রাণীও নন। তার শুধুমাত্র রাজনীতিবিদ। রাজনীতির মানদণ্ড অসংবেদনশীলতা, স্বার্থপরতা ও লোভ। দেশ সেবা ও দেশ সেখানে কোথাও নেই’।

 

 

 

 

 

আসানসোলে শাসক দলের বিরুদ্ধে হিংসার অভিযোগ করেন বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়। তার গাড়িতে ভাঙচুরও করা হয়। এনিয়ে তৃণমূল প্রার্থী মুনমুন সেন বলেন, ‘আমার বেড টি-টা আজকে ওরা বড্ড দেরিতে দিয়েছে। ঘুম থেকে উঠতে অনেক দেরি হয়েছে। আমি কী বলব? আমি সত্যিই কিছু জানি না।’

 

 

 

 

 

মুনমুনের ‘বেড টি’ মন্তব্যে বেজায় চটেছেন স্বস্তিকা। কারও নাম নিয়ে তিনি লিখেছেন,’নির্বাচনে লড়াই করছেন অথচ আপনার বেড-টি সময়ে আসেনি বলে সংঘর্ষের খবর পেলেন না? গরমে মানুষকে উন্মাদ করে দিয়েছে। এভাবে চললে পাগল রাজা ও রানি দেশ চালাবে’।