প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: ঝালকাঠিতে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ৫টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এরই মধ্যে ২৮টি সাইক্লোন শেল্টারসহ পাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মসজিদ-মন্দিরকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার উপযোগী করা হয়েছে।

 

 

 

 

 

৩৭টি মেডিক্যাল টিম ও দুই হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসন স্বাস্থ্য বিভাগ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীসহ সংশ্লিষ্টদের ছুটি বন্ধ রেখে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিকে আজ বৃহস্পতিবার সকালে অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে বিআইডাব্লিউটিএ।

 

 

 

 

 

 

গ্রামপর্যায়ে মাইকিংয়ের মাধ্যমে সতর্কতাবার্তা প্রচার করা হচ্ছে। সম্ভাব্য পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে ৩৪২ মেট্রিক টন চাল, ২০০০ প্যাকেট শুকনো খাবার ও নগদ সাত লাখ টাকা মজুদ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর।

 

 

 

 

 

 

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় জেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য নিয়ন্তণকক্ষ (কন্ট্রোল রুম) ০৪৯৮৬২২৩৩ এবং ০১৭০৫৪১১০০৫ নম্বরটি সচল থাকবে বলে জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর।