প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   অবশেষে বিরতিহীন ট্রেন বনলতায় টিকিটের সঙ্গে খাবারের মূল্য নেওয়ার ব্যবস্থা থেকে সরে এসেছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে সম্প্রতি চালু হওয়া এই ট্রেনে বাধ্যতামূলকভাবে টিকিটের সঙ্গে খাবারের মূল্য কেটে নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে কর্তৃপক্ষ। এতে শুরুতেই মুখ থুবড়ে পড়ে রাজশাহী অঞ্চলের সাধারণ মানুষের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পাওয়া বিরতিহীন বনলতার জনপ্রিয়তা।

 

 

 

 

 

বিশেষ করে শোভন চেয়ারের যাত্রী হারাতে থাকে বনলতা। এ নিয়ে প্রথমবার্তা গত ৩ মে একটি প্রতিবেদন প্রকাশের পর তৎপর হন রাজশাহীর জনপ্রতিনিধিরা। শেষে গত বৃহস্পতিবার বনলতায় বাধ্যতামূলক খাবারের মূল্য নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শাহনেওয়াজ বলেন, এই অঞ্চলের মানুষের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রেলপথ মন্ত্রণালয় বনলতায় টিকিটের সঙ্গে খাবারের মূল্য কেটে নেওয়া বাতিল করতে যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

আগামী ১৮ মে থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে। তখন থেকে যাত্রীরা ট্রেনের ভেতরে তাদের ইচ্ছেমতো খাবার কিনে খেতে পারবে। টিকিটের সঙ্গে কোনো টাকা কেটে নেওয়া হবে না। এতে করে বনলতায় শোভন চেয়ারের টিকিটের দাম পড়বে ৩৭৫ টাকা এবং এসি চেয়ারের দাম পড়বে ৭২৫ টাকা।প্রসঙ্গত, বনলতায় খাবারের দাম হিসেবে টিকিটের সঙ্গে ১৫০ টাকা করে কেটে নেওয়া নিয়ে গত ৩ মে প্রথমবার্তায় খবর প্রকাশিত হলে বিষয়টি তুমুল আলোচনার জন্ম দেয়।

 

 

 

 

 

এরপর এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়ে গত ৫ মে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। রাজশাহী-২ আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশাও এ ব্যাপারে চিঠি দেবেন বলে ওই দিন জানান। জানা  গেছে, পরদিন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন রাজশাহীর সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনকে ফোন করে এ ব্যবস্থা দ্রুত বাতিল করবেন বলে জানান।