প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    ভাঙা হাড় জোড়া লাগাতে গাঁজার উপকারিতা অপরিসীম বলে দাবি গবেষকদের।চিকিৎসা বিদ্যায় গাঁজার আরও একটি ব্যবহার আবিষ্কার করেছে ইজরাইলের বিজ্ঞানীরা। ভাঙা হাড় জোড়া লাগাতে গাঁজা গাছের বেশ কিছু উপাদান অত্যন্ত কার্যকরী বলে দাবি গবেষকদের।

 

 

 

 

‘জার্নাল অফ বোন অ্যান্ড মিনেরাল রিসার্চ’-এ প্রকাশিত এই গবেষণাপত্র অনুযায়ী গাঁজা গাছে যে অ-সাইকোঅ্যাকটিভ যৌগ ক্যানাবিডল থাকে তা অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে ভাঙা হাড় জুড়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে।এই গবেষণার অন্যতম প্রধান ডঃ ইয়ানকেল গাবে বলেন, ‘আমরা দেখেছি ক্যানাবিডল একাই ভাঙা হাড় সারিয়ে তোলার ক্ষমতা রাখে। কোলাজেনাস ম্যাট্রিক্সকে পরিণত করে তোলে, যা হাড় কলাগুলোর মিনেরেলাইজেশনের ভিত তৈরি করে।”

 

 

 

 

 

একবার এভাবে ভাঙা হাড় জোড়া লাগলে ভবিষ্যতে আরও একবার তা ভাঙা কঠিন হয়।মানুষের শরীরে প্রাকৃতিকভাবে এন্ডোক্যানাবিনয়েড সিস্টেম থাকে। এই সিস্টেম স্কেলেটনের সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে। মানুষের মস্তিষ্ক ও শরীর ক্যানাবিনয়েড প্রতি স্বাভাবিকভাবেই প্রতিক্রিয়াশীল। গাঁজার মত বাহ্যিক সোর্স থেকে আগত ক্যানাবিয়েডলেও মানুষের মস্তিষ্ক সহজে সাড়া দেয়।

 

 

 

 

 

এর আগে বহু গবেষণায় প্রমাণিত ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে এমনি এইডস-এর মত মারণ রোগ সংক্রমণে গাঁজার জুড়ি মেলা ভার। বহু ভয়ানক ক্যান্সারের ক্ষেত্রে মেটস্ট্যাটিস প্রতিহত করার ক্ষমতা রাখে ক্যানাবিডল।