প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   বহু কিছু নিয়েই বিভিন্ন বিশ্বাস প্রচলিত রয়েছে অনেকের মধ্যে৷ সন্ধ্যাবেলায় মেয়েদের চুল বাঁধা উচিত নয় থেকে শুরু করে কত কিছুই না রয়েছে তালিকায়৷ তেমনই আরেক বিশ্বাস হল কুকুর-বিড়ালের কান্না নাকি অমঙ্গল ডেকে আনে৷ অনেকের মনেই এই বিশ্বাস জোরালোভাবে বসে থাকলেও কখনও কি একবারও মনে হয়নি কেন এমন বলা হয়?

 

 

 

 

কুকুর, বিড়াল কাঁদলে সামনাসামনি তাকে দেখতে পেলে অনেকেই এদের তাড়িয়ে দিয়ে কান্না বন্ধ করার চেষ্টা করে থাকে৷ কিন্তু এদের কান্নাকে অমঙ্গল কেন বলে তারও কিন্তু যুক্তি শোনা যায়৷

 

 

 

 

মনে করা হয় প্রাকৃতিক দুর্যোদের আগে এলাকার আবহাওয়া এবং তার অবস্থার যে পরিবর্তন হতে পারে সবার আগে টের পায় পশু পাখিরা৷ আর সেই আতঙ্কেই তারা কাঁদতে বা তারস্বরে চিৎকার শুরু করে৷ তাই মনে করা হয় কিছু অমঙ্গল অশনি সংকেত দিচ্ছে৷

 

 

 

 

 

 

আবার প্যারানরমাল অ্যাক্টিভিটি থেকে অশরীরির উপস্থিতিও কুকুর, বিড়াল থেকে শুরু করে পশু-পাখিরা আগে টের পায় বলে মনে করা হয়৷ আর তারা তখন চিৎকার করে জানান দেওয়ার চেষ্টা করে৷ যদি এই ব্যাখ্যা বিতর্কিত৷ তাও এভাবেই এই প্রচলিত ধারণার ব্যাখ্যা খুঁজে থাকেন অনেকে৷