প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   সারাবিশ্বের সংবাদমাধ্যমেই ধর্ষণের সংবাদ থাকেই অর্থাৎ বিশ্বের সর্বত্রই ধর্ষণ হচ্ছে। ধর্ষণ ঠেকাতে কত আইন-কানুন, বিধি-নিষেধই না তৈরি হয়েছে, তবুও থামেনি ধর্ষণ। এবার ধর্ষণ প্রতিরোধে এলো অত্যাধুনিক এক ব্যবস্থা, শাড়ি নাকি ধর্ষণ প্রতিরোধ করবে।

 

 

 

 

 

শুনতে অবাক লাগলেও ভারতের ‘সুপার সংস্কারি শাড়ি’ কতৃপক্ষ এমনটাই দাবি করছে। নিজেদের ওয়েবসাইটে এই অদ্ভুত শাড়ির কথা ব্যাখ্যা করেছে তারা। তবে পুরোটাই মজা করে। তাদের মতে, ‘পোশাকই যদি ধর্ষণের কারণ হয়, তবে এমন শাড়িই মহিলাদের পরা উচিত।’ওয়েবসাইটটিতে শাড়ির বিবরণে লেখা রয়েছে, এই পোশাকে রয়েছে ধর্ষণ-প্রতিরোধক প্রযুক্তি।

 

 

 

 

 

শাড়িটি পরলে ধর্ষক ওই মহিলাকে দেখতেই পাবেন না। যৌনপিপাসুদের হাত থেকে বাঁচতে এই অত্যাধুনিক শাড়ি অবশ্যই নিজের কালেকশনে রাখুন। যখন আপনাকে দেখাই যাবে না, তখন ধর্ষণের কোনও আশঙ্কাও থাকবে না।যদিও বাস্তবে এ শাড়িতে এমন কিছুই নেই।

 

 

 

 

 

 

আসলে মজা করেই সমাজের সেই সব মুখোশ পরা মানুষদের কটাক্ষ করতে চেয়েছেন তারা। এ শাড়িগুলোতে নেকাবের মতো মুখ ঢাকার ব্যবস্থা রয়েছে।ওয়েবসাইটে বলা আছে, শাড়িগুলো অনলাইনে অর্ডারও করা যাবে।

 

 

 

 

 

 

১০০, ২০০, ৫০০ টাকা – নানা মূল্যের শাড়ি রয়েছে। তবে নিছকই ব্যবসার জন্য শাড়িগুলো তারা বিক্রি করছে না। এই অর্থ সমাজের পিছিয়ে পড়া মেয়েদের শিক্ষার জন্য ব্যবহার করা হবে। যাতে হিংসার বিরুদ্ধে তারা নিজেরাই রুখে দাঁড়াতে পারেন।