প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি করা হবে রাজধানীর পাঁচটি স্থান থেকে। স্থানগুলো হচ্ছে কমলাপুর রেলস্টেশন, ফুলবাড়িয়া পুরাতন রেল ভবন, বনানী রেলস্টেশন, বিমানবন্দর রেলস্টেশন ও তেজগাঁও রেলস্টেশন। আগামী ২২ মে থেকে ২৬ মে পর্যন্ত এসব স্থানে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি চলবে।

 

 

 

 

গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকার রেল ভবনে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।তিনি জানান, ২২ মে বিক্রি হবে ৩১ মের টিকিট। এভাবে ২৩ মে বিক্রি ১ জুনের, ২৪ মে ২ জুনের, ২৫ মে ৩ জুনের ও ২৬ মে বিক্রি হবে ৪ জুনের ট্রেনের টিকিট। ৫ জুন ঈদ ধরে নিয়ে রেলওয়ে এই আগাম টিকিট বিক্রি শুরু করছে বলে তিনি জানান।

 

 

 

 

 

রেলমন্ত্রী বলেন, কমলাপুর রেলস্টেশনের ২০টি কাউন্টার থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে চলাচলকারী পশ্চিমাঞ্চলগামী টেনগুলোর টিকিট বিক্রি করা হবে। রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী ট্রেনগুলোর টিকিট বিক্রি করা হবে। এ ছাড়া তেজগাঁও স্টেশন থেকে ময়মনসিংহ ও জামালপুরের বিভিন্ন ট্রেনের, বনানী রেলস্টেশন থেকে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের, ফুলবাড়িয়া পুরাতন রেল ভবন থেকে কিশোরগঞ্জ ও সিলেটগামী সব আন্ত নগর ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি করা হবে।

 

 

 

 

 

ঢাকা থেকে প্রতিদিন ২৭ হাজার টিকিট বিক্রি করা হবে। সারা দেশে ৯২টি আন্ত নগর ট্রেনের ৭০ হাজারের বেশি টিকিট বিক্রি করা হবে। রেলমন্ত্রী আরো জানান, ৭ জুন থেকে শুরু হবে ঈদের ফেরত যাত্রা। ফেরত যাত্রার টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৯ মে। ২৯ মে ৭ জুনের, ৩০ মে ৪ জুনের, ৩১ মে ৯ জুনের, ১ জুন ১০ জুনের ও ২ জুন বিক্রি হবে ১১ জুনের টিকিট।তিনি আরো জানান, আগামী ২৫ মে ঢাকা থেকে পঞ্চগড় রুটে ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ বিরতিহীন ট্রেন চালু করা হবে।