প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ঈদযাত্রাকে কেন্দ্র করে গণপরিবহনে যে সীমাহীন নৈরাজ্য চলছে, ইতিহাসে এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি। সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না। ভাড়া নিয়ে গণপরিবহনের লোকেরা যাত্রী সাধারণের সাথে চরম দুর্ব্যবহার করছে, লাঞ্ছিত করছে। মহাসড়কে দুর্বিসহ যানজটে পড়ে মানুষ সীমাহীন কষ্ট করছে। এগুলো দেখার কেউ নেই।

 

 

 

 

আজ মঙ্গলবার নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।রিজভী বলেন, গণপরিবহনে এ নৈরাজ্যের জন্য দায় ওবায়দুল কাদের সাহেবরা এড়াতে পারেন না। গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের ব্যর্থতার দায় নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী পদত্যাগ করেন। কিন্তু বংশানুক্রমিকভাবে পদত্যাগের জিন আওয়ামী নেতাদের মধ্যে নেই।

 

 

 

 

 

বিএনপির এই নেতা বলেন, গত শুক্রবার তামাকবিরোধী সংগঠন ‘মানস’ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, জিয়াউর রহমান তার শাসনামালে দেশকে মাদকের অভ্যায়ণ্য বানিয়েছিলেন, সেখান থেকে সরকার দেশকে মাদকমুক্ত করার চেষ্টা করছে।

 

 

 

 

 

 

এর জবাবে তিনি বলেন, আমি বলব, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আমলে কোনো ‘বদি’ ছিল না, যে বদিকে পিছনে দাঁড় করিয়ে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়ে ফান করেন মিডনাইট প্রধানমন্ত্রী। আর সেই বিনাভোটের সরকারের গোয়েবলস মার্কা তথ্যমন্ত্রী হলেন হাছান মাহমুদ। আসল বিষয়টা হলো, এ ধরনের উদ্ভ্রান্ত বক্তব্য দেয়াটাই মন্ত্রিত্ব টিকিয়ে রাখার গ্যারান্টি।’

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, তাই হাছান মাহমুদকে বলব, কোনো কথা বলার আগে একবার আয়নার দিকে তাকিয়ে নেবেন।সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।