প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  এমন চিড়িয়াখানার কথা শুনেছেন যেখানে বাঘ, সিংহ, নেকড়ে, কুমির, বাঁদরের মমি সাজিয়ে রাখা আছে?  অবাক হচ্ছেন? শুনতে অবাক লাগলেও এ ধরনের চিড়িয়াখানাও রয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যের গাজা উপত্যকায় রয়েছে এই অদ্ভুত ধরনের চিড়িয়াখানা। এর নাম সাউথ ফরেস্ট পার্ক।

 

 

 

 

 

জানা গেছে, চিড়িয়াখানাটি চালু হয়েছে ২০০৭ সালে। বাঘ, সিংহ, উটপাখিসহ মোট ৬৫টি প্রাণী জায়গা পায় এই চিড়িয়াখানায়। কিন্তু তারপরই ইসরায়েল এবং প্যালেস্তাইনের যুদ্ধের কারণে চিড়িয়াখানাটির আর রক্ষণাবেক্ষণ করা সম্ভব হয়নি। রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে, অনাহারে ১ বছরের মধ্যেই মারা যায় সবকটি প্রাণী।

 

 

 

 

 

চিড়িয়াখানার মালিক মোহাম্মদ আওয়াইদা কেবল একটি মাত্র বাঘকেই জীবিত অবস্থায় বিক্রি করতে পেরেছিলেন।  জানা গেছে, ওই চিড়িয়াখানার মালিক মৃতপ্রায় বাঘটিকে ২৩ হাজার ডলারে বিক্রি করতে পেরেছিলেন । বাকি মৃত প্রাণীদের মমি করে সংরক্ষণ করা হয়।

 

 

 

 

 

তবে শুধুমাত্র সাউথ ফরেস্ট পার্কেই নয়, যুদ্ধের কারণে এমন পরিস্থিতির শিকার হতে হয় গাজার আল বাইসন জু-এর প্রাণীদেরও। রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে, অনাহারে এখানেও ৮০টির মধ্যে মাত্র ২০টি প্রাণী জীবিত রয়েছে।

 

 

 

 

 

এদিকে ২০০৯ সালে যুদ্ধ চলাকালীন গাজার অন্য একটি চিড়িয়াখানার একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়েছিল। ছবিতে দেখা যায়, একটি গাধাকে সাদা-কালো ডোরাকাটা রং করে জেব্রা সাজানো হয়েছে। আর তা-ই ভিড় করে দেখছেন ওই চিড়িয়াখানায় আসা দর্শকরা।