প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:বছর কয়েক আগে ৪০-৫০ বছর বয়সে গিয়ে চুল পাকত। কিন্তু বর্তমানে ২০-২৫ বছর বয়সের আগেই চুল পেকে যাচ্ছে। এটি ভিন্ন বয়সী মানুষের একটি বড় সমস্যা। অল্প বয়সে চুল পাকার কারণ জেনে নিন—

১) মানসিক চাপ- মানসিক চাপ আপনাদের নানা ক্ষতির জন্য দায়ী। তার মধ্যে রয়েছে অল্প বয়সে চুল পাকা। মানসিক চাপের জন্য আপনাদের শরীরে হরমোনের পরিবর্তন হয়। এর ফলেই অকালে চুল পেকে যায়।

২) দূষিত আবহাওয়া- দৈনন্দিন জীবনে সকলকেই কাজের সূত্রে বাড়ির বাইরে বেরোতে হয়। এতে পরিবেশে মিশে থাকা দূষিত পদার্থ শরীরের সংস্পর্শে এসে চুলের ক্ষতি করে। এতে চুলের রঙ ধূসর বা সাদা হয়ে যায়।

৩) ধূমপান- ধূমপান করলে যেমন চুলের রঙে পরিবর্তন দেখা দেয়। তার সঙ্গে পাশের কেউ যদি ধূমপান করে তা পরোক্ষভাবেও চুলের ক্ষতি করে, সাদা হয়ে যায় চুল। যারা ধূমপান করেন তাদের অকালেই চুল পেকে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

৪) হরমোনজনীত কারণ- অকালে চুল পাকার একটি অন্যতম কারণ হল শরীরে হরমোনের মাত্রার পরিবর্তন। এরফলে চুল পরার সমস্যা ও চুল সাদা হয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়। হরমোনজনীত কারণ সাধারণত ৩০ বছর বয়সের পর থেকেই শুরু হয়।

৫) পুষ্টির অভাব- খাবারে যদি প্রয়োজনীয় পুষ্টি না থাকে তবে অসময়ে চুল পাকা শুরু হতে পারে। ভিটামিন বি টুয়েলভের অভাবে চুল রুক্ষ, পাতলা এবং ধূসর বর্ণের হয়ে যায়।

৬) ঔষধ- অনেক সময় রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কোনও ঔষধ খেলে তার প্রতিক্রিয়ায় চুল সাদা বা ধূসর হতে পারে।

৭) পারিবারিক কারণ- অনেক সময় বাবা-মা কিংবা পরিবারের বাকি সদস্যদের মধ্যে অসময়ে চুল পাকার প্রবণতা থাকলে, তার জন্য চুল সাদা হয়ে যেতে পারে। এটি মূলত জিনগত সমস্যা।

৮) চুল রঙ- ফ্যাশনের জন্য অনেকেই চুল রঙ করে থাকেন। চুল রঙ করতে বিভিন্ন কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়। এর ফলেও

চুল সাদা বা ধূসর হয়ে পড়তে পারে।