প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি)। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবনের ফটকে ফটকে ঝুলছে তালা। দাবি না মানা পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

সকাল ১০টার দিকে সরেজমিন দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভবন, কলাভবন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, ব্যবসায় অনুষদ, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, মোকাররম ভবন, কার্জন হলের ফটকগুলোতে তালা ঝুলছে।

এদিকে প্রধান প্রধান ফটকে তালা লাগানো থাকায় ক্লাস-পরীক্ষা হচ্ছে না, আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ভেতরে প্রবেশ করতে পারছেন না।
আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র শাকিল মিয়া জানান, সোমবারও স্বতঃস্ফূর্তভাবে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে অংশ নিয়েছে। সব একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে তালা দেয়া হয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্লাস পরীক্ষায় অংশ নেয়া থেকে বিরত থাকছে।
জানা গেছে, সকাল ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে তালা দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এর পর সেখানে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে অবস্থান নেন তারা।

আন্দোলনত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থী জানান, তাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।
এর আগে রোববারও ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। তার আগে টানা দুদিন শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা।

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলসহ চার দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। দাবিগুলো হচ্ছে- চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকেই অধিভুক্ত সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিল করা; দুই মাসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষার ফল দেয়া; বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম ডিজিটালাইজেশন করা এবং ক্যাম্পাসে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ ও রিকশা ভাড়া নির্ধারণ করা।