প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, ওষুধ কেনায় দুর্নীতি আর অদক্ষতা ঢাকতেই ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের খবরকে দক্ষিণের মেয়র গুজব বলেছেন।

 

 

 

 

 

 

আর স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেঙ্গুতে মৃত্যুর হারকে পাশের দেশগুলোর সঙ্গে তুলনা করেছেন। মনে হয় দেশের মানুষের মৃত্যু তার কাছে কিছু না।

 

 

 

 

 

 

 

আবার স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মশার ওষুধের কার্যকারিতা নিয়ে সাফাই গেয়েছেন। অথচ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রী উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

 

 

 

 

 

 

 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ডেঙ্গু-বন্যা মোকাবেলায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে সমন্বয় সভা করেছে। তারপরও গবুচন্দ্র এই মেয়র-মন্ত্রীদের জন্যই মশক নিধন ও ডেঙ্গু নিয়ে এ লেজেগোবরে অবস্থা।

 

 

 

 

 

 

 

রাজধানীর তোপখানা রোডে যুব মৈত্রীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে শুক্রবার বিকালে বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর ডেঙ্গুবিরোধী জনসচেতনতা কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

 

 

 

 

 

 

মেনন বলেন, ডেঙ্গু নিয়ে মানুষের ত্রাহি অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়ানো যুব সমাজের কর্তব্য। এদেশের অতীত ইতিহাসে বন্যা, কলেরা মহামারী, দুর্ভিক্ষাবস্থায় যুবক রাজনৈতিক কর্মীরাই তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে।

 

 

 

 

যুব মৈত্রীর সহ-সভাপতি তৌহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মুতাসিম বিল্লাহ সানী, সহ-সভাপতি আব্দুল আহাদ মিনার, তাপস দাস, মিজানুর রহমান, সুমন প্রমুখ।

 

 

 

 

 

 

পরে ডেঙ্গুবিরোধী জনসচেতনতা শোভাযাত্রা সেগুনবাগিচা-শিল্পকলা একাডেমি-জাতীয় প্রেস ক্লাব হয়ে পল্টনে এসে শেষ হয়।