প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: সারাদেশে ডেঙ্গু ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। ইতোমধ্যে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

 

 

 

 

গত কয়েকদিনে রাজধানীতে মহামারির রূপ নিয়েছে ডেঙ্গু। ছোট শিশু থেকে বৃদ্ধ অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন ডেঙ্গু জ্বরে। সবার মধ্যে আতঙ্ক ডেঙ্গু নিয়ে।

 

 

 

 

এদিকে, ডেঙ্গু রোগীদের নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে দেশের হাসপাতাল গুলো। রাজধানীতে ডেঙ্গু জ্বরের প্রাদুর্ভাবের ফলে প্রতিদিনই বাড়ছে রোগীর সংখ্যা।

 

 

 

 

 

ইতোপূর্বে দেশে বিভিন্ন সময় ডেঙ্গু রোগ দেখা গেলেও এবারের মতো ভয়াবহ ছিল না।

 

 

 

 

 

এবার যেমন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তেমনি মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে।

 

 

 

 

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম জানিয়েছে, দেশের ৬৪টি জেলার ৬৩টিতেই ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে।

 

 

 

 

তাদের তথ্য বলছে, একমাত্র নেত্রকোনা জেলা ছাড়া দেশের বাকি সব জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

 

 

 

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের পরিচালক ডা. সানিয়া তাহমিনা বলেন, ৬৩টি জেলা থেকে আমরা খবর পেয়েছি যেখানে ডেঙ্গুর রোগী পাওয়া যাচ্ছে।

 

 

 

 

একমাত্র নেত্রকোনা জেলায় যেখানে এখনও ডেঙ্গু হয়নি।

 

 

 

 

হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম আরও জানিয়েছে, গত ১ জানুয়ারি থেকে বুধবার (৩১ জুলাই) পর্যন্ত ডেঙ্গু
আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৭ হাজার ১৮৩ জন।

 

 

 

 

 

আর প্রাণঘাতি এ রোগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১৪ জন। তবে, বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা তিনগুণের বেশি।

 

 

 

 

কন্ট্রোল রুমের তথ্য মতে, গত ২০১৮ সালে ডেঙ্গু আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ১৪৮ জন।

 

 

 

 

এরমধ্যে নিহত হয়েছিল ২৬ জন। গত বছর এই দিনে (৩১ জুলাই) রোগীর সংখ্যা ছিল ৯৪৬ জন।নিহত হয়েছিল ৭ জন।