প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: ভারত-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সীমিত পর্যায়ে টেলিফোন ব্যবস্থা পুনরায় চালু করা হয়েছে। গতকাল রাজধানী শ্রীনগরের ডেপুটি কমিশনারের (ডিসি) দফতরে মাত্র দুটি ফোন ব্যবহার করে কাশ্মীরের বাইরে জরুরি ফোন করার অনুমতি দেওয়া হয়। সে সময়ে এক কাশ্মীরি মা পবিত্র ঈদুল আজহায় ছেলেকে কাশ্মীরে ফিরতে মানা করলেন।

জানা গেছে, ফোন করার জন্য শ্রীনগরের লাল চক এলাকায় ডিসি অফিসে জওহার নগর থেকে পায়ে হেঁটে যান এ দুর্ভাগা মা। তারপর তিনি ফোনে ছেলের সঙ্গে কথা বলেন।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেওয়া এবং ওই অঞ্চলকে ভারতের সঙ্গে একীভূত করে নেয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরপরই কাশ্মীরের সঙ্গে বাইরের সব যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। আপাতত শ্রীনগরের ডিসি অফিস থেকে সতর্ক নজরদারির ভিত্তিতে জরুরি ফোন করার অনুমতি দেওয়া হয়। এ বিষয়ে ভারতের কোনও কোনও সংবাদ মাধ্যম সেখানে আংশিক যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছে।

ব্যাঙ্গালুরে অবস্থান করা ছেলেকে এই মা বলেন, ‘কাশ্মীরের পরিস্থিতি উত্তেজনাকর। এ অবস্থায় ঈদ করতে কাশ্মীরে ফেরার কোনো দরকার নেই।’

এ সময় ছেলেটিও মায়ের ফোন পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন বলেও জানান তিনি। সে সময় নিজেকে সামলিয়ে তাদের নিয়ে দুঃচিন্তা করতে ছেলেকে নিষেধ করেন।

উল্লেখ্য, কাশ্মীরিদের এক মিনিটের মধ্যে কথা শেষ করতে বাধ্য করা হয়। এমনকি কী বিষয়ে কথা বলা হবে তা আগেভাগে জানাতে হয়। তারপরেই কেবল কথা বলার অনুমতি মেলে।

এদিকে ভারতসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, শ্রীনগরের ডিসি অফিসের দুটি ফোন থেকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কাশ্মীরের বাইরে বসবাসরত সন্তানদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করা হয়েছে।