প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:     প্রিয় বস্তুকে আল্লার কাছে উৎসর্গ করার মধ্যে দিয়েই নাকি সূচনা হয়েছিল ইদ-উল-আজহা বা বকরিদের। এবার সেই আল্লার কাছে উৎসর্গের জন্য বিক্রি করা হল শরীরে ‘আল্লাহ’ লেখা একটি ছাগল। সালমন নামে ওই ছাগলটি আট লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বাজারে।

 

 

 

 

 

কোরবানির উদ্দেশ্যে কয়েকদিন ধরেই ভারতের বিভিন্ন পশু কেনাবেচার বাজারে ভিড় জমাচ্ছিলেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরা। ছাগল থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন বাজারে বেশ চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছিল অন্যান্য পশুও। বিক্রেতার সঙ্গে দরদাম করে নিজের পছন্দ মতো পশু বাড়ি নিয়ে যাচ্ছেন সবাই।

 

 

 

 

এরই মাঝে গোরক্ষপুরে বাজারে গিয়ে চোখ কপালে উঠল ক্রেতাদের।একটি ছাগলের গায়ে নাকি আল্লার নাম লেখা রয়েছে। আসলে ছাগলটির রংই এমন। দেখে মনে হয় যেন আরবিতে আল্লাহ শব্দটি ছাপা রয়েছে তার গায়ে। ছাগলটি শেষপর্যন্ত বিক্রি হল আট লাখ টাকায়।

 

 

 

 

 

এ প্রসঙ্গে ওই ছাগলের মালিক গোরক্ষপুরের পশু ব্যবসায়ী মহম্মদ নিজামুদ্দিন বলেন, ছাগলটির শরীরে জন্ম থেকেই প্রাকৃতিকভাবে উর্দুতে আল্লা লেখা ছিল। ছাগলটিকে ঈশ্বর নিজের দূত হিসেবে পাঠিয়েছে।

 

 

 

 

 

 

তাই ওর শরীরে থাকা লোমে আল্লাহ শব্দটি লেখা আছে। ওকে কুরবানি বা উৎসর্গ করলে গ্রাহকের মনস্কামনা পূরণ হতে পারে। তাই চড়েছে দাম। তাছাড়া প্রতিদিন ছাগলটির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৮০০ টাকা করে খরচ হত।

 

 

 

 

 

 

নিজের জন্যও অত টাকা খরচ করিনি। তাই ৯৫ কেজি ওজনের ওই ছাগলটি দাম আট লাখ টাকা রেখেছিলাম।’বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার হতবাক হয়েছেন নেটিজেনরা। কেউ কেউ, একটি ছাগলের অত দাম শুনে চমকে উঠেছেন।

এই বিভাগের আরো খবর :

ফরিদপুরে বিপুল পরিমাণ নিষিদ্ধ ওষুধ উদ্ধার, একজনের অর্থদণ্ড
কলেজে জিনস, স্কার্ট পরতে পারবে না রাজস্থানের মেয়েরা
পরাধীনতার শৃঙ্খল মোচনে শান্তির বার্তাবাহক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চ : মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্না...
রোড আইল্যান্ডে অজানা বস্তু নিয়ে রহস্য
বাঙালি ছেলে ও ইন্দোনেশিয়া মেয়ের এক অমর প্রেমের গল্প, কাহিনী জানলে কষ্ট পাবেন !!
মেয়েদের টক খেতে বলা হয় কিন্তু ছেলেদের খেতে নিষেধ করা হয় কেন
নারীর কাম বাসনায় উত্তেজিত হওয়ার লক্ষন (ভিডিওটি দেখুন)
‘অপারেশন জ্যাকপট’ পরিচালনা করবেন গিয়াসউদ্দিন সেলিম
নড়াইলে বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন
বুলবুলকে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করতে চায় তার পরিবার
বিএনপির নির্বাচনকালীন সরকারে থাকার কোনো সুযোগ নেই
রোনালদোর জোড়া গোলে রিয়ালের বিরাট জয়
শিক্ষিত-মার্জিতদের হাতে যুবলীগের নেতৃত্ব: হাছান মাহমুদ
ভারত অবশেষে কার্যকর করলো ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব আইন
ইরান নিহতদের লাশ ফেরত পাঠাচ্ছে