প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:   মানহানি মামলায় বিচারিক আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন । রবিবার ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

 

 

 

 

এর আগে ৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত মানহানির মামলায় মইনুল হোসেনের আবেদন নাকচ করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছিলেন।

 

 

 

 

গত বছরের ২১ অক্টোবর মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে মানহানির মামলা করেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি। দণ্ডবিধির ৫০০, ৫০৬ ও ৫০৯ ধারায় মইনুলের বিরুদ্ধে মামলা করেন মাসুদা ভাট্টি। আদালত মাসুদা ভাট্টির মামলাটি আমলে নিয়ে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

 

 

 

 

গত বছরের ১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে বেসরকারি একাত্তর টেলিভিশনের টক শোতে আলোচকদের একজন ছিলেন মাসুদা ভাট্টি। একপর্যায়ে লাইভে যুক্ত হন আইনজীবী মইনুল হোসেন।

 

 

 

 

 

এ সময় মইনুলের কাছে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে, আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না?’ মইনুল হোসেন এ প্রশ্নের জবাব দেওয়ার একপর্যায়ে মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন ।মামলার পর গত বছরের ২২ অক্টোবর মইনুল হোসেন গ্রেপ্তার হন। হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে গত ১৪ জানুয়ারি মইনুল হোসেন মুক্তি পান।