প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:  আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। গতকাল রোববার রাত ৯টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে গিয়ে সালাম বিনিময় করে শোভন-রাব্বানী চলে আসেন।

 

 

 

 

 

এ সময় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের আরও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কারও সঙ্গেই তেমন কথা না বলে শুধু সালাম নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

 

 

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানী জানান, ছাত্রলীগের এই কমিটির নেতৃবৃন্দের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কোনো বিরূপ মনোভাব তারা দেখতে পাননি। বরং আন্তরিকভাবেই সালাম নিয়েছেন বলে জানান শোভন-রাব্বানী।

 

 

 

 

এর আগে গত শনিবার গণভবনে দলের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দেন এমন খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে এ নিয়ে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের মধ্যে আলোচনার সৃষ্টি হয়।

 

 

 

 

 

পরে গতকাল রোববার সকালে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় কমিটি ভেঙে দেওয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ছাত্রলীগের কিছু কর্মকাণ্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষোভ থাকতে পারে।’

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, ‘কথা প্রসঙ্গে হয়তো কথা আসে। এটা সিদ্ধান্ত আকারে কোনো কথা হয়নি। কোনো সিদ্ধান্তের ফোরাম ওটা ছিল না। কাজে ওখানে ইনসাইডে আমরা অনেক কথাই বলতে পারি, অনেক আলোচনাই করতে পারি। এখানে ক্ষোভের প্রকাশ ঘটতে পারে, প্রতিক্রিয়া হতে পারে কিন্তু কোনো সিদ্ধান্ত আকারে কিছু হয়নি।’