প্রথমবার্তা প্রতিবেদক: আত্মহত্যা প্রবণ হয়ে পড়লে বহু মানুষই বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ করেন। কখনো বা সেই চিহ্ন শরীরে থেকে যায়। আত্নহত্যার চেষ্টা করতে গিয়ে হাতের শিরা কাটতে যান যারা, সেই দাগ অনেক সময়ে থেকে যায়। আত্মহত্যা, উদ্বেগ কাটিয়ে উঠলেও সেই দাগ শরীরে একইভাবে থেকে যায়। সমাজের তির্যক মন্তব্যের ভয় সেই দাগগুলো দেখাতে ভয় পান অধিকাংশ মানুষই। লোকে কী বলবে এই ভেবে ঢেকে রাখা ছাড়া কোনো উপায় থাকে না। এখানেই অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় বরাবরের মতো ব্যতিক্রমী।

 

 

আজ বিশ্ব আত্মহত্যা প্রতিরোধ দিবস। আত্মহত্যা প্রতিরোধ নিয়ে সচেতনতার বার্তা দিয়ে নজির গড়লেন তিনি। জীবনকে শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত না নিয়ে, মানুষ যেন বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করে। হাতের কাটা দাগগুলো শেয়ার করে এই বার্তাই দিলেন টলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়।

 

 

 

 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, স্বস্তিকাও এক সময়ে আত্মহত্যা প্রবণ হয়ে হাতের শিরা কাটার চেষ্টা করেছিলেন। সেই রয়ে যাওয়া দাগই আজ একটি ছবিতে পোস্ট করলেন তিনি। এই ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখলেন, এই দাগগুলোই আমাদের নির্ধারণ করে। এই দাগগুলোর নিজস্ব গল্প রয়েছে। অবসাদ, উদ্বেগ, ইমোশনাল ইনস্টেবেলিটি, আত্নহত্যা প্রবণতার গল্প। কিন্তু আসল গল্পটাই আমরা এড়িয়ে যাই।

 

 

 

 

তিনি আরো লেখেন, এই মানুষগুলো কতটা শক্তিশালী তা আমাদের চোখে পড়ে না। তাই পরের বার থেকে এমন কাটা দাগ দেখলে, আমাদের পাগল, অসুস্থ, সাইকো, বাইপোলার এই সব বলে ডাকা বন্ধ করুন। অন্যের ব্যাপারে অযথা ধারণা তৈরি করা, তার ব্যাপারে নিন্দা করা বন্ধ করুন। বরং, তাদের কথা শুনুন, কথা বলুন, ভালোবাসুন।