6 / 100 SEO Score

প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:  ক্যালশিয়াম যেমন হাড়ের জন্য খুব প্রয়োজনীয়, ঠিক তেমনই ভিটামিন-ডি-ও শরীরের হাড় মজবুত রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়৷ তাই হাড়ের সমস্যায় অনেক সময়েই ডাক্তাররা একটি পরীক্ষা করিয়ে সেই মতো ভিটামিন-ডি প্রেসক্রাইব করেন৷

 

 

 

 

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, আমাদের দেশে, যেখানে অফুরন্ত রোদ্দুর, সেখানে ভিটামিন-ডি-র এত ঘাটতি দেখা যাচ্ছে কেন৷ কারণ, সূর্যালোক সংশ্লেষ করে শরীরে ভিটামিন-ডি-র ঘাটতি মেটানো যায়৷ আলাদা করে ওষুধ খেতে হয় না৷

 

 

 

 

যেসব শীতের দেশে সেভাবে রোদ্দুর ওঠে না সারাবছর, সেখানকার মানুষজনের মধ্যে এই ভিটামিন-ডি-র ঘাটতি দেখা দেয় অনেকসময়ে৷ কিন্তু আমাদের মতো গ্রীষ্মপ্রধান দেশে তো এমনটা হওয়ার কথা নয়৷

 

 

 

 

অনেকেই এরজন্য দায়ী করছেন অপরিকল্পিত নগরায়ণকে৷ তাঁদের বক্তব্য, যেভাবে সারিসারি হাইরাইজ উঠছে, তাতে করে আর ঘরবাড়িতে আগের মতো রোদ্দুর ঢুকতে পারছে না৷ আগে যেসব পাড়ায় পর্যাপ্ত আলো-হাওয়া খেলত, সেখানে এখন দিনরাত অন্ধকার৷ রোদ্দুর ঢুকলেও তা একেবারেই অপর্যাপ্ত৷

 

 

 

 

আরও একটা কারণ আছে বলে কেউকেউ মনে করেন৷ তাঁদের বক্তব্য, একেই তো আমাদের অফিস থেকে শুরু করে বাড়িঘর সবই এখন বাতানুকূল৷ তার ওপর যেটুকু সময় আমরা রোদ পাই, তা-ও ঠিকমতো কাজে লাগাতে পারি না৷ মানে, তাঁদের কথামতো, মাঝদুপুরে আপনি প্রখর রোদ্দুরে বেরোলেন, সেই রোদ্দুর কিন্তু সেভাবে আপনার শরীরে ভিটামিন-ডি সংশ্লেষ করতে পারবে না সেভাবে৷ দিনের মধ্যে বিশেষ কিছু সময়ের রোদ্দুর আমাদের শরীরের পক্ষে তাই উপকারি৷

 

 

 

 

মোটকথা, যাই হোক-না কেন, ভিটামিন-ডি-র ঘাটতি আমাদের রীতিমতো ভাবিয়ে তুলেছে৷ এই গ্রীষ্মপ্রধান দেশে কেন এই ঘাটতি, তা নিয়ে তর্ক চলছে বিস্তর৷ তবে সেসব তর্কের মধ্যে না-গিয়েও বলা চলে, সুযোগ পেলেই সকালবেলার রোদ্দুর গায়ে লাগান৷ যতটুকু সম্ভব৷