10 / 100 SEO Score

প্রথমবার্তা প্রতিবেদক:  আজ সালমান শাহের জন্মদিন। বেঁচে থাকলে এবারে ৪৮ বছরে পা রাখতেন এই সুপারস্টার। স্মরণ ও শ্রদ্ধায় দিনটিকে পালন করছে সালমান ভক্তরা। বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে দেখানো হচ্ছে তার অভিনীত সিনেমা।

 

 

 

 

এদিকে সালমানের জন্মদিন উপলক্ষে ঢুলি কমিউনিকেশস আয়োজন করেছে সপ্তাহব্যাপী ‘সালমান শাহ জন্মোৎসব-২০১৯’। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় মধুমিতা সিনেমা হলে উৎসবের উদ্বোধন হয়ে গেল। উৎসবকে ঘিরে সালমান ভক্তদের উচ্ছ্বাসের শেষ নেই।

 

 

 

 

তার ভিড়ে যোগ দিয়েছেন সালমানের স্ত্রী সামিরাও। তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘আমি তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই যারা সালমানের সৃষ্টিশীলতা নিয়ে এখনো আগ্রহী, কাজ করছেন। সবার মাঝে নতুন করে সালমানকে ছড়িয়ে দিতে এই উৎসবের আয়োজন করেছেন।’

 

 

 

 

তিনি আরও বলেন, ‘সালমানের মৃত্যুর পর তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়েই বেশি টানাটানি হয়েছে। সত্যকে এড়িয়ে মিথ্যের সাম্রাজ্যে নানা রকম রূপকথার জন্ম দেয়া হয়েছে। প্রিয় নায়কের প্রতি আবেগে সালমানের ভক্তরা সেই রূপকথাকে খুব সহজেই গ্রহণ করেছে। তাদের কাছে আমাকেও খলনায়িকা বানানো হয়েছে। কিন্তু ইন্ডাস্ট্রির সবাই জানে আমিই ছিলাম সালমানের জীবনে বাস্তবের স্বপ্নের নায়িকা। যাকে ছাড়া সালমান একটি মুহূর্তও কল্পনা করতো না।

 

 

 

 

আশার কথা হলো দিনে দিনে পরিস্থিতি পাল্টাচ্ছে। মানুষ সত্যটা নিয়ে ভাবছে। সালমানের ব্যক্তি জীবনকে বাদ দিয়ে তার সৃষ্টিশীলতা নিয়ে কথা বলছে, কাজ করছে। এটা যত বেশি হবে ততবেশি ইন্ডাস্ট্রিতে আসা নতুনদের জন্য প্রেরণা তৈরি হবে। কারণ,

 

 

 

স্টাইলে, ফ্যাশনে, সাফল্যে ও অভিনয়ে সালমানকে ফলো করতে চায় সবাই। তাদের জন্য সালমানের নায়ক জীবনের চর্চা ও সিনেমাগুলোর প্রতি মনযোগ বাড়ানো দরকার।’

 

 

 

 

সামিরা সালমানের সিনেমাগুলো সংরক্ষণের দাবি জানিয়ে বলেন, ‘যারা উৎসব করছেন তারা নিঃসন্দেহে ভালো একটি উদ্যোগ নিয়েছেন। তবে আমি মনে করি সালমান শাহের সিনেমা নিয়ে উৎসবের চেয়ে বেশি জরুরি তার সিনেমাগুলোকে সংরক্ষণ করা। কারণ ওগুলোর প্রিন্ট অনেক পুরনো। ফুটেজ খুব বেশিদিন ঠিক থাকবে না। সেজন্য প্রিন্টগুলো ডিজিটালাইজড করে নেয়া উচিত। তাতে করে চিরকাল সালমানের ছবিগুলো সংরক্ষিত থাকবে। সিনেপ্লেক্সেও ছবিগুলো চালানো যাবে যে কোনো সময়।’