11 / 100 SEO Score

প্রথমবার্তা, রিপোর্ট:   যেসব ঋণ খেলাপি শতকরা ২ ভাগ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা নিয়েছেন তারা আর কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ সুবিধা নিতে পারবেন না বলে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের মেয়াদ আরো একমাস অথবা এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

 

 

 

 

 

বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রবিবার এ আদেশ দেন। ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে গত ১৬ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের জারি করা প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) করা এক আবেদন নিষ্পত্তি করে এ আদেশ দেন আদালত।

 

 

 

 

আবেদনকারীপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শামীম খালেদ ও মো. মনিরুজ্জামান।

 

 

 

 

 

এর আগে ২ শতাংশ সুদ জমা দিয়ে ১০ বছরের জন্য ঋণ পুনঃ তফসিলের জন্য গত ১৬ মে প্রজ্ঞাপন জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ২১ মে হাইকোর্ট এক আদেশে বাংলাদেশ ব্যাংকের এই প্রজ্ঞাপনের কার্যকারিতার ওপর স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে এই স্থিতিবস্থার আদেশ বাড়ানো হয়।

 

 

 

 

 

 

আপিল বিভাগ গত ৮ জুলাই এক আদেশে শর্ত সাপেক্ষে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৩ জুলাই হাইকোর্ট এক আদেশে ১৬ মে জারি করা প্রজ্ঞাপন নিয়ে রুল জারি করেন।

 

 

 

 

 

এই রুলের ওপর শুনানিকালে হাইকোর্ট গত ২৯ আগস্ট এক আদেশে যেসব ঋণ খেলাপি শতকরা ২ ভাগ ডাউন পেমেন্টের সুবিধা নিয়েছেন তারা আর কোনো ব্যাংক থেকে ঋণ সুবিধা নিতে পারবেন না বলে আদেশ দেন।

 

 

 

 

 

 

 

২০ অক্টোবর পর্যন্ত এই আদেশের কার্যকারিতা দেওয়া হয়। এ অবস্থায় আজ হাইকোর্ট আগের আদেশের মেয়াদ বাড়ালেন। তবে এ বিষয়ে জারি করা রুলের ওপর শুনানি অব্যাহত রয়েছে।