প্রথমবার্তা, নিজস্ব প্রতিবেদক:     প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, আমরা বুঝতে পারিনি কেন ভারত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) পাশ করলো। এর প্রয়োজন ছিল না। সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে গাল্ফ নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী তার এ মতামত জানান।

 

 

 

 

 

ভারতে ১০ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনে বাংলাদেশ ও অন্যান্য প্রতিবেশী দেশে নির্যাতনের শিকার হওয়া অসুমলিম সংখ্যালঘিষ্ঠদের নাগরিকত্ব দেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে। ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর ভারতীয় সংসদে সেটি পাশ হয়।

 

 

 

 

এ আইনের ফলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ২০১৪ সালের আগে ভারতে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি, খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব লাভের সুযোগ করে দেবে।

 

 

 

 

 

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ সবসময় সিএএ ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি)কে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে দেখেছে।

 

 

 

 

 

ভারত সরকারও বারবার জানিয়েছে এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং ২০১৯ সালের অক্টোবরে ভারত সফরের সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি ব্যক্তিগতভাবে আমাকে এ বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।

এই বিভাগের আরো খবর :

গয়েশ্বরসহ গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীদের নি:শর্ত মুক্তি দিন : বাংলাদেশ ন্যাপ
পুলিশ উস্কানি দিয়ে পরিস্থিতি জটিল করছে: রিজভী
কেউ নির্বাচনে না এলে কি জেলে পাঠাব?
পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি চলাচল বন্ধ
ফিটনেস : কর্মজীবী নারীদের ব্যায়াম
এমপি হতে না পেরে মন খারাপ নায়িকাদের
সবচেয়ে কম দামে ফুল ভিউ ডিসপ্লের ফোন আনল ওয়ালটন
জেনে নিন চলচ্চিত্রের নায়ক-নায়িকারা কে কোথায় নির্বাচন করছে
জন্মদিনে যাত্রা শুরু করল 'শাকিব খান অফিসিয়াল'
চীনের শীর্ষ ধনী হলেন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবসায়ী মা হুয়াতেং
রবীন্দ্র স্মৃতিধন্য আত্রাইয়ের পতিসর এখন নতুন সাজে সজ্জিত
কিছুক্ষণের মধ্যে যে একাদশ নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ
বেশিরভাগ অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি বিএনপির
হঠাৎই মঞ্চ থেকে ঝাঁপ দিলেন রণবীর
ভোলাহাটে রেশম উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণের উদ্বোধন