প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :ফুটবল খেলা নিয়ে বিরোধের জের ধরে শিশু নাহিন আহম্মেদকে হত্যা করা হয়। এ হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছে কিশোর মশিউর রহমান। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠায় বাড্ডা থানা পুলিশ।

এর আগে বুধবার দুপুরে বাড্ডার আফতাব নগরের ১৮ নম্বর রোডের এল ব্লকের কাশবনের ভেতরে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করার পর শ্বাসরোধ করে নাহিনকে হত্যা করে মশিউর রহমান। এরপর রাত ১১টার দিকে ওই এলাকা থেকে নাহিনের (৬) লাশ উদ্ধার করে বাড্ডা থানা পুলিশ। এ সময় নাহিন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে কিশোর মশিউর রহমানকে গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ।

নিহত নাহিন নরসিংদির বেলাবোর নোয়াকান্দি গ্রামের ইলেকট্রিক মিস্ত্রি হিরন মিয়ার ছেলে। স্থানীয় একটি স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল এই শিশু। তাকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার মশিউর রহমান নাহিনের প্রতিবেশি বলে জানা গেছে।

মশিউর স্বীকারোক্তিতে বলেছে, বল খেলা নিয়ে বিরোধের কারনে নহিনকে আমি হত্যার পরিকল্পনা করি। এরপর ফুঁসলিয়ে নরসিংদি থেকে আফতাব নগরে নিয়ে এসে প্রথমে পেছন থেকে ইট দিয়ে নাহিনের মাথায় আঘাত করি। এরপর শ্বাসরোধ করে হত্যা করি।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী ওয়াজেদ আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, খেলা নিয়ে বিরোধের কারনে শিশু নাহিনকে মশিউর একাই হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

তবে নাহিনের বাবা হিরণ মিয়ার ধারনা মশিউর একা নাহিনকে খুন করেনি। তার সঙ্গে আরো অনেকে আছে। নাহিন হয়তো তাদের নাম চেপে যাচ্ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে নাহিনের লাশ সনাক্ত করে পরিবার। এ সময় পরিবারের সদস্যরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

নাহিনের বাবা হিরন মিয়া বলেন, স্কুল থেকে ফিরে বাসায় বই রেখে নাহিন খেলতে বের হয়। এরপর বাসার সামনে মশিউরের সঙ্গে ফুটবল খেলা করছিল। কিন্তু এক তাদেরকে আর খেলা করতে দেখা যায়নি। খেলা শেষে নাহিন আর বাসাতেও ফেরিনি। এলাকায় অনেক খোঁজ করেও ছেলেকে না পেয়ে ভয় হয়। পরে মশিউরের খোঁজ করা হয়। কিন্তু তাকেও এলাকায় পাওয়া যায়নি। সন্ধ্যার পর মশিউরকে পেয়ে নাহিনের খোঁজ করা হয়। এ সময় সে কোন উত্তর দিতে পারেনি। এক পর্যায়ে মশিউরের প্যান্টে রক্তের দাগ চোখে পড়ে। এর কারণ জিজ্ঞাসা করলে মশিউর এলোমেলো উত্তর দিতে থাকে। বিষয়টি সন্দেহে হলে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে মশিউর হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে। সে পুলিশকে জানায়, বাড্ডার আফতাবনগরে কাশবনে নিয়ে নাহিনের  মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়। এরপর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

এই বিভাগের আরো খবর :

শাহরুখের সঙ্গে নাচলেন হিলারি
পরাজয়ের বৃত্তে মোস্তাফিজের মুম্বাই
আ’পত্তিকর অবস্থায় চাচির সঙ্গে ভাতিজা আটক
তিন আসনেই খালেদা জিয়ার মনোনয়ন স্থগিত
কি-বোর্ডের ‘কি’ কেন এলোমেলো?
তারো কোনো নেপিডোতে সু চির সঙ্গে বৈঠক করলেন
ভালোবাসা সম্পর্কে অজানা তথ্য
আত্রাইয়ে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত
নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য ফরমায়েশি রায় : খন্দকার মাহবুব
ঝালকাঠিতে বিএনপির বিক্ষোভ
জমজম কূপ পবিত্র ঝরণাধারার একাল-সেকাল
লবঙ্গ খেলেই যে ৮টি রোগের খেল খতম হবে
মোদি সরকারের ধর্মান্ধ আদর্শের প্রতিফলন বাবরি মসজিদ রায়: পাকিস্তান
সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির লিফলেট বিতরণ
বিরল নীল বরফ ছড়াল মুগ্ধতা