প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: করোনা বিষয়ক যেকোনো পরামর্শ পেতে যে হটলাইনগুলো চালু করা হয়েছে সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় মোট এক লাখ ২২ হাজার ৪৫টি ফোন এসেছে।

 

 

 

 

তাদের স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. সানিয়া তাহমিনা।

 

 

 

অনলাইন ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

 

 

 

 

ডা. সানিয়া তাহমিনা জানান, করোনা বিষয়ে যেকোনো পরামর্শ পেতে যে হটলাইনগুলো চালু রয়েছে তার কথা আপনারা জানেন। স্বাস্থ্য বাতায়নের ১৬২৬৩, ৩৩৩ এবং আইইডিসিআর এর দুটো ডেডিকেটেড নম্বর ১০৬৪৪ এবং ০১৯৪৪৩৩৩২২২।

 

 

 

 

স্বাস্থ্য বাতায়নের ১৬২৬৩ নম্বরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৩ হাজার ৩৭৯টি ফোনকল এসেছে, তাদের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়েছে। আর ৩৩৩ নম্বরে ৪৫ হাজার ৭৭৬ জন ফোন দিয়ে সেবা নিয়েছেন।

 

 

 

 

আর আইইডিসিআর এর হটলাইনে ৩ হাজার ৪৯৮ জন আমাদের পরামর্শ নিয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় এসব নম্বরে এক লাখ ২২ হাজার ৪৫ জন মানুষ ফোন দিয়ে পরামর্শ নিয়েছেন।

 

 

 

 

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৬ জন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭ জনে। নতুন করে মৃতদের ৫ জন পুরুষ এবং একজন নারী।

 

 

 

প্রায় ১২ শ নমুনা পরীক্ষার পর গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন সংক্রমণ শনাক্ত করেছি ৯৪ জনের মধ্যে। সর্বমোট সংক্রমণের সংখ্যা ৪২৪। নতুন করে আক্রান্ত ৯৪ জনের মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ৬৯, এবং নারী ২৫ জন।

 

 

 

 

 

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, আক্রান্তদের মধ্যে ১০ বছরের নিচে রয়েছে ৪ জন, ১১ থেকে ২০ বছর বয়সের মধ্যে ৬ জন, ২১-৩০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৩১-৪০ বছর বয়সীদের মধ্যে ২৯ জন, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে আছেন ১৬ জন, ৫১-৬০ বছর বয়সীদের মধ্যে ১৪ জন, তারও বেশি বয়সীদের মধ্যে ১৩ জন।ডা. সানিয়া তাহমিনা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১১৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত মোট ৭৩৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়।